সোয়েব সাঈদ :

করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারি রামুর  ছেনুআরা বেগম জানাযা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রাত ১ টায় জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

ছেনুআরা বেগম (৬৫) রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের পূর্ব কাউয়ারখোপ গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আবদুল্লাহর স্ত্রী।

বৃহষ্পতিবার (৩০ এপ্রিল) রাত আটটার দিকে তিনি কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে মৃত্যবরণ করেন।

রামু উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) সরওয়ার উদ্দিন, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, ইসলামিক ফাউণ্ডেশন এর সুপারভাইজার সাইফুদ্দিন খালেদ এর তত্বাবধানে ইসলামিক ফাউণ্ডেশন এর কাফন-দাফন কমিটি জানাযা ও দাফন সম্পন্ন করে। এসময় রামু থানা পুলিশের একটি দল উপস্থিত ছিলেন।

রাত একটার পূর্বে ছেনুআরা বেগমের মরদেহ কক্সবাজার সদর হাসপাতাল থেকে এ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে আসা হয় কাউয়ারখোপ বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ সংলগ্ন সড়কে। সেখানে অনুষ্ঠিত জানাযায় ইমামতি করেন, মাওলানা মোহাম্মদ উল্লাহ।

জানাযায় কাফন-দাফনকারি ছাড়াও মরহুমার ছেলেসহ পরিবারের ৩ জন অংশ নেন। এছাড়াও জানাযাস্থল থেকে ১০০ হাত দূরে শতাধিক জনতা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে জানাযায় অংশ নেন।

রামু উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. নোবেল কুমার বড়ুয়া জানান, বৃহষ্পতিবার কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ল্যাবে পরীক্ষায় করোনা ভাইরাসে শনাক্ত হন ছেনুআরা বেগম। এটি কক্সবাজার জেলায় করোনায় প্রথম মৃত্যু।

রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা জানিয়েছেন, করোনায় মৃত ছেনুয়ারা বেগমের দাফন সম্পন্ন করা হয়েছে। রামু উপজেলা ইসলামিক ফাউণ্ডেশন এর কাফন-দাফন কমিটি দাফন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •