নেজাম উদ্দিনঃ 

বৈশ্বিক ভাবে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনার ভাইরাসের প্রভাবে পুরো বিশ্ব আজ স্থবির হয়ে পড়েছে। মহামারী এ রোগে আক্রান্ত হয়ে দিন দিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল। এখন দেশে অঘো ষিত ভাবে চলছে লকডাউন এরিমধ্যে শুরু হয়ে গিয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। মাঠে কৃষকের ধান পাকতে শুরু করেছে। চলছে শ্রমিক সংকট, এতে গরিব অসহায় কৃষকেরা পড়েছে চরম বিপাকে। যার ফলে সারা দেশের ন্যায় করোনার ছোঁয়ায় অনেকটা বিপর্যস্ত কক্সবাজারের কৃষি খাত। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রথম থেকে সারা বাংলাদেশের ন্যায় কক্সবাজারে ও ধান কাটাতে সহায়তা করছে কক্সবাজার ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা ৷
কক্সবাজার পৌর ছাত্রলীগও এর ব্যতিক্রম নয়।

বৃহস্পতিবার (৩০ এপ্রিল) কক্সবাজার পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) হাসান ইকবাল রিপনের নেতৃত্ব ৭-৮ জন নেতা কর্মী নিয়ে কক্সবাজার এর নিকটবর্তী খুরুশকুল ইউনিয়ন এর কাউয়ারপাড়া এলাকার এক কৃষকের ডাকে সাড়া দিয়ে রোজা রেখে সারা দিনে এক একর জমির ধান কেটে দেয়।

হাসান ইকবাল রিপন বলেন, কক্সবাজার পৌরশহরের নিকটবর্তী ইউনিয়ন খুরুস্কুলের এক কৃষকের ধান কেটে দিলাম। সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফয়সালকে এলাকার এক কৃষক ধান কেটে দিতে বলে।পরবর্তীতে সে আমাকে বললে আমরা পৌর ছাত্রলীগের ৯নং ওয়ার্ড সভাপতি রায়হান,৪নং ওয়ার্ড সভাপতি আসিফ,৭নং ওয়ার্ড সভাপতি রুবেলসহ পৌর ছাত্রলীগের আরো ৬/৭জন ও ফয়সালের নেতৃত্ব খুরুস্কুলের ৬/৭জন ছাত্রলীগ কর্মী মিলে এক একরের কাছাকাছি ধান কেটে দেই। আমরা কক্সবাজার পৌর ছাত্রলীগ করোনা মহামারির প্রথম থেকে করোনা মোকাবেলায় জনগনের সেবাই কাজ করে যাচ্ছি, এবং আমরা ভবিষ্যতেও সকল দুর্যোগ মোকাবেলায় জনগণের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত থাকবো৷

এতে উক্ত কৃষক এমন সংকটাপন্ন অবস্থায় বিশেষ সহায়তা পেয়ে পৌর ছাত্রলীগের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন৷

প্রসঙ্গত কক্সবাজার পৌর ছাত্রলীগ করোনা মহামারির প্রথম থেকেই কক্সবাজারে হেন্ড সেনিটাইজার বিতরণ, জনগনের মধ্যে করোনা ভাইরাস সম্পর্কে বিভিন্ন ভাবে সচেতনতা তৈরি করে আসছিল এবং পৌর ছাত্রলীগের নিজস্ব ফান্ড তৈরি করে গরীব অসহায়দের জন্য বিশেষ ত্রাণ সহায়তা প্রদান করে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •