মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৩০ এপ্রিল করোনা ভাইরাস রোগী সনাক্ত হওয়া ৫ জনের ২ জন রামু উপজেলার বাসিন্দা। তারা ২ জনই কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের মাধ্যমে স্যাম্পল টেস্টে দেওয়ায় তারা ২ জনকে টেস্ট রিপোর্টে কক্সবাজার সদর উপজেলা এলাকার বলে গণ্য করা হয়েছিলো।

কক্সবাজার সদর উপজেলার বাকী ৩ জন করোনা রোগীর মধ্যে একজন হলেন, কক্সবাজার পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মোহাজের পাড়া এলাকায় কাউন্সিলর সালাহউদ্দিন সেতুর বাড়ির পাশের বাসিন্দা। সে সদ্য ঢাকা ফেরত।

২য় জন খুরুস্কুল ইউনিয়নের টাইমবাজার এলাকার বাসিন্দা। সে গত ২৭ এপ্রিল কভার্ড ভ্যানে করে ঢাকা থেকে প্রথমে চট্টগ্রাম আসে। চট্টগ্রাম থেকে পরে ভেঙ্গে ভেঙ্গে কক্সবাজার আসে।

৩য় জন হচ্ছে, একজন সেলুন শ্রমিক। সে হলিডে মোড়ে বসবাস করে। তার স্থায়ী বাড়ি টেকনাফে। সে প্রায় একদশক ধরে সরকারি একটি সংস্থার সদস্যেদের চুল কাটে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মাধ্যমে রামু’র যে দুজন বাসিন্দা করোনা স্যাম্পল টেস্টে পজিটিভ রিপোর্ট আসে, তার হলো-জোয়ারিয়ানালা এলাকার একজন পশু চিকিৎসক। এই পশু চিকিৎসকের বর্তমান কর্মস্থল টেকনাফ উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসে। তিনি জেলা সদর হাসপাতালের মাধ্যমে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে স্যাম্পল টেস্টে পাঠিয়েছিলেন।

অপরজন রামু’র কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের পূর্ব কাউয়ারখোপের একজন মহিলা। তার সন্তান কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে ডিজিটাল সেন্টারে কর্মরত। উক্ত মহিলা রোগী গত ২৯ এপ্রিল থেকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন আছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •