এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়ায় প্রথমবারের মতো অত্যাধুনিক সংক্রিয় মেশিনে ধান কাটা কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। কৃষি মন্ত্রানালয়ের বরাদ্দের বিপরীতে চকরিয়া উপজেলার প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে ধান কাটার অত্যাধুনিক যন্ত্র দেওয়া হচ্ছে। বুধবার ২৯ এপ্রিল চকরিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আনুষ্ঠানিকভাবে চকরিয়ায় সংক্রিয় ধান কাটা কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

চকরিয়া উপজেলা কৃষি বিভাগের উদ্যোগে কৃষি যন্ত্রপাতিতে উন্নয়ন সহায়তার আওতায় অর্ধেক সরকারী ভর্তুকী দিয়ে ধানকাটার যন্ত্র প্রদান করা হয়েছে। উদ্বোধনীতে ধানকাটার একটি যন্ত্রটি প্রদান করা হয়েছে লক্ষ্যারচরের মন্জুল আলম নামের এক কৃষককে।

বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ক´বাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবুল কাশেম, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সৈয়দ শামশুল আলম তাবরীজ, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি চৌধুরী, চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা এস এম নাসিম হোসেন, চকরিয়া উপজেলা কৃষি সম্প্রাসারণ কর্মকর্তা মোঃ নাজমুল হোসেন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মহিউদ্দিন, উপসহকারী কৃষি অফিসার রাজীব দে প্রমুখ।

চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ্এস এম নাসিম হোসেন বলেন, অত্যাধুনিক ধানকাটার এ যন্ত্রটি মূল্য ধরা হয়েছে ২৯লাখ টাকা। এই টাকার অর্ধেক সরকার ভর্তুকী দিয়েছে। বাকী অর্ধেক কৃষক মন্জুল আলম দিবেন। তৎমধ্যে তাকে নগদ দিতে হয়েছে প্রায় ৩লাখ টাকা। বাকী টাকাগুলো কিস্তিতে পরিশোধযোগ্য। কৃষি কর্মকর্তা বলেন, হারভেষ্টার যুক্ত ধানকাটার এই যন্ত্রটি ঘন্টায় এক একর জমির ধান কেটে মাড়াই করে বস্তায় প্যাকেট করে দিতে সক্ষম। এক ঘন্টায় মাত্র ৪/৫ লিটার ডিজেল খরচ হবে। ইয়ানমার কোম্পানির তৈরী এ যন্ত্রটি সকল যন্ত্রাংশ দেশের বাজারে সহজে পাওয়া যায়।

ক´বাজার কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবুল কাশেম বলেছেন, ধান কাটতে কথা টাকা খরচ হবে সেটি কৃষক ও যন্ত্রটির পরিচালকের সাথে কথা বলেই ঠিক করা হবে। এখানে কৃষক ও যন্ত্রটির মালিক দু’পক্ষের স্বার্থ বিবেচনায় আনা হবে। ধানকাটার যন্ত্রটি প্রথমবারের মতো চকরিয়া বা এতাদঞ্চলে আনা হয়েছে।##

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •