সিবিএন ডেস্ক:
চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ট্রপিক্যাল ইনফেকশাস ডিজিজেসের (বিআইটিআইডি) ল্যাবে আরও ৪ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ জন চট্টগ্রামের বাসিন্দা।

মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) ১০০টি নমুনা পরীক্ষার পর তাদের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৬৭ জনে।

রাত সাড়ে ৯টার দিকে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিআইটিআইডিতে মঙ্গলবার ১০০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৬ জনের ফলাফল পজিটিভ আসে। তবে তাদের মধ্যে দুজন পুরোনো রোগী রয়েছেন। তিনজন নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানা, নগরের দামপাড়া পুলিশ লাইন্স ও বিএনএস পতেঙ্গা এলাকার বাসিন্দা। বাকি একজন লক্ষ্মীপুরের বাসিন্দা।

চট্টগ্রামের স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৬ মার্চ চট্টগ্রামে করোনার নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। চট্টগ্রামে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয় ৩ এপ্রিল। নগরীর দামপাড়ায় ৬৭ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি তার ওমরাফেরত মেয়ের মাধ্যমে সংক্রমিত হন বলে ধারনা করা হয়। এখন পর্যন্ত তিনি করোনা পজিটিভ আছেন। পরে ৫ এপ্রিল দ্বিতীয় করোনা রোগী শনাক্ত হন ওই ব্যক্তির ২৫ বছর বয়সী ছেলে।

৮ এপ্রিল চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত হন তিনজন। একদিন বিরতি দিয়ে ১০ এপ্রিল বিআইটিআইডিতে নমুনা পরীক্ষায় আরও দুইজন করোনা পজিটিভ পাওয়া যায়। এরপর ১১ এপ্রিল চট্টগ্রামে করোনারোগী শনাক্ত হন তিনজন। ১২ এপ্রিল চট্টগ্রামে সে সংখ্যা বেড়ে পাঁচজনে দাঁড়ায়। আক্রান্তদের একজন শিশু ওই দিন দিবাগত রাতে জেনারেল হাসপাতালে মারা যায়। এছাড়া এদিন ট্রাফিক পুলিশের এক সদস্যও করোনা আক্রান্ত হন।

গত ১৩ এপ্রিল চট্টগ্রামে শনাক্ত হওয়া দুই রোগীর একজন নারী করোনা শনাক্তের আগেই আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা যান। ১৪ এপ্রিল সর্বোচ্চ ১১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে চট্টগ্রামে। এর মধ্যে এক চিকিৎসক, সাতকানিয়ার পাঁচ যুবক ও নগরের সাগরিকা এলাকার এক পরিবারের চারজন করোনায় আক্রান্ত হন। এর পরের চারদিন ১৫, ১৬, ১৭ ও ১৮ এপ্রিল আক্রান্তের সংখ্যা কমে হয় যথাক্রমে ৫, ১, ১ ও ১ জনে।

তবে ১৯ এপ্রিল হঠাৎ চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায়। এ দিন ৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এছাড়া পুরনো এক রোগীর আবারও করোনা পজিটিভ আসে। ২১ এপ্রিল নতুন একজন করোনা শনাক্ত হওয়ায় জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৪০ জনে। ২২ এপ্রিল নতুন ৩ করোনা শনাক্ত হয়। ২৪ এপ্রিল নগরের দামপাড়ায় আরও একজন রোগী শনাক্ত হয়। গতকাল ২৫ এপ্রিল আরও দুজন করোনা রোগী শনাক্ত করা হয়। ২৬ এপ্রিল শনাক্ত হয় ৭ জন, ২৭ এপ্রিল ৯ জন ও সর্বশেষ মঙ্গলবার নতুন ৩ রোগী শনাক্ত হওয়ায় মোট রোগী দাঁড়ালো ৬৭ জন। এদের মধ্যে ঢাকা ও রাজবাড়ীতে করানো শনাক্ত হয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হওয়া দুই ব্যক্তি রয়েছেন।

এ নিয়ে চট্টগ্রামে এক শিশু, দুই বৃদ্ধ ও দুই নারীসহ মোট পাঁচজন করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এছাড়া আইসোলশনে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন পাঁচজন। মৃত্যুর পর তাদের পাঁচজনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষায় করোনা নেগেটিভ পাওয়া যায়। এদিকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন মোট ১২ জন নারী-পুরুষ। আর ২৮ জন আইসোলেশনে ভর্তি আছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •