সিবিএন প্রতিবেদক

কক্সবাজারের রামুর বাসিন্দা জিন্নাত আলীকে বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলেও জানিয়েছে চিকিৎসকরা।

সোমবার (২৭ এপ্রিল) তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিউরোসার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয় বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেননিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী রেজিস্ট্রার ডা. খুরশিদ আনোয়ার। জিন্নাতকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, জিন্নাতের মস্তিষ্কে টিউমার রয়েছে। এ ছাড়া একাধিক শারীরিক সমস্যা রয়েছে। রোগীর অবস্থা ভালো নয়। তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি চলছে। আমরা ইতোমধ্যে আইসিইউতে যোগাযোগ করেছি।

এরআগে, রোববার জিন্নাত আলীকে চমেক হাসপাতালে আনা হয়। প্রথমে তাকে হাসপাতালের নিউরোলজি বিভাগে ভর্তি করা হয়। সেখানে পরীক্ষা নিরীক্ষা শেষে তাকে সোমবার নিউরোসার্জারি বিভাগে স্থানান্তর করা হয়। তার অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছে চিকিৎসকরা।

উল্লেখ্য যে, কক্সবাজারের রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়নের বড়বিল গ্রামের আমির হামজার ছেলে ৮ ফুট ৬ ইঞ্চি লম্বা জিন্নাত আলী বর্তমানে বাংলাদেশের সবচেয়ে লম্বা মানুষ। ২০১৮ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন জিন্নাত আলী। এরপর তাকে নিয়ে হইচই পড়ে যায়।

১৯৯৬ সালের জিন্নাত আলী জন্মগ্রহণ করেন। তিনি পরিবারের দ্বিতীয় সন্তান। ১১ বছর বয়স থেকে জিন্নাত আলীর শরীরের অস্বাভাবিক উচ্চতা বৃদ্ধি শুরু হয়। সেটি একসময় বেড়ে ৮ ফুট ৬ ইঞ্চিতে গিয়ে দাঁড়ায়।

২০১৮ সালের অক্টোবরে জিন্নাত আলীকে চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি করা হয়। তখন চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, জিন্নাতের মস্তিষ্কে টিউমার রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ছাড়া হরমোন সমস্যার কারণে তার উচ্চতা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •