ইমরান আল মাহমুদ, উখিয়াঃ
সারাদেশে লকডাউন ঘোষণার পর সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখতে নানা পদক্ষেপও গ্রহণ করেছে সরকার।
মাঠে কঠোর অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।তবুও সাধারণ জনগণ বিভিন্ন কাজে বাড়ি থেকে বের হয়ে বিভিন্ন স্টেশনে যাওয়া আসা অব্যাহত রেখেছে।
কক্সবাজার জেলা লকডাউন ঘোষণার পর সোমবার (২৭এপ্রিল) উখিয়ার কোর্টবাজার স্টেশনে ভিন্ন চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। জনসাধারণের স্বাভাবিক চলাচল অব্যাহত রয়েছে।ব্যাংক,তরকারি বাজার,মাছবাজার,মুদির দোকান ও ফার্মেসী থেকে শুরু করে প্রায়ই সবখানে জনসাধারণের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে কাজকর্ম সম্পন্ন করতেও দেখা যায়নি।এমনকি আত্মসচেতনতার দিকটি বরাবরই অসম্পূর্ণ থেকেই যাচ্ছে।বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর চোখ ফাঁকি দিয়েও বিনাকারণে প্রতিনিয়ত মানুষের ঘুরাফেরা অব্যাহত রয়েছে।যানবাহন চলাচলেও স্বাভাবিকতা দেখা গেছে।
তবে জনসাধারণের অসচেতনতার ফলে ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে।বিভিন্ন এলাকার লোকজনের আসা যাওয়ার ফলে স্টেশনকেন্দ্রীক বাজারগুলোতে জনসমাগম লক্ষ্য করা গেছে।নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে বেচা-কেনা সম্পন্ন করা না গেলে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের আশঙ্কা করছে স্থানীয় সচেতন ব্যক্তিবর্গরা।
তাদের মতে,উখিয়া রোহিঙ্গা অধ্যুষিত উপজেলা হওয়াতে বিভিন্ন জেলার লোকজনের আসা যাওয়া বেশী।যাদের প্রতিনিয়ত বিভিন্ন স্টেশনে চলাচল লক্ষ্য করা যায়। সাথে স্থানীয় জনসাধারণের চলাচলও অব্যাহত থাকার ফলে স্টেশনে,বাজারে ভিড় করার ফলে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।তবে আত্মসচেতনতা বৃদ্ধি করা না গেলে পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •