গত ২৩ এপ্রিল কক্সবাজার জেলা কারাগারে দুই হাজতির মধ্যে মারামারি সংক্রান্ত একটি সংবাদ জাতীয় ও কক্সবাজারসহ অধিকাংশ অনলাইন গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়। উক্ত সংবাদ আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। কিন্তু এই সত্য সংবাদে জাতীয় দৈনিক কালেরকন্ঠ, বার্তাবাজার ও টেকনাফের কয়েকটি অনলাইনে প্রকৃত যাদের মধ্যে ঘটনা হয়েছে তাদের একজনের নাম বাদ দিয়ে আমার ভাই এনামুল হক এনাম মেম্বারের নাম দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে। মূলত ঘটনা হয়েছে একরাম-আনচারীর মধ্যে। যা দেশের অধিকাংশ মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। ঘটনায় কালেরকন্ঠসহ কয়েকটি অনলাইনে আমার নিরীহ ভাই এনাম মেম্বারকে জড়িয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে যা অত্যান্ত দুংখজনক। আমি আমার পরিবারের পক্ষ থেকে উক্ত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
অধিকাংশ মিডিয়ায় সত্য সংবাদ ও আসল ঘটনা হলো-কক্সবাজার কারাগারে মামলা নিস্পত্তি নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) বিকেল ৩টায় ঘটনাটি ঘটে। হাতাহাতিতে একটি গ্রুপ টেকনাফ সদরের মৌলভীপাড়া গ্রামের ফজল করীমের ছেলে একরাম ও কক্সবাজার বাসটার্মিনাল লারপাড়ার শাহজাহান আনচারী গ্রুপ। সেখানে কি উদ্যোশ্যে একরামের নামের পরিবর্তে এনাম মেম্বারের নাম ব্যবহার করা হয়েছে তা অত্যান্ত পরিকল্পিত এবং ষড়যন্ত্র। অথচ আসল ঘটনা কারা ঘটিয়েছে তার রেকর্ড ও প্রায় মিডিয়ায় প্রচার করা হয়েছে। মূলত ২০১৯ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারী আত্বসমর্পনের পর থেকে কারাগারে মামলা মোকদ্দমা দেখাশুনার দায়িত্ব নেন শাহজান আনসারী। এরপর সবার কাছ থেকে সংশ্লিষ্ট দপ্তরে টাকা দেয়ার জন্য মোটা অংকের একটি ফান্ডও গঠন করেন। মামলার নিস্পত্তি না হয়ে সময়ক্ষেপন হচ্ছে বারবার এ বিষয়ে জানতে কারাগারের ক্যাশ টেবিলে এক পর্যায়ে বাড়াবাড়ি হলে হাতাহাতি হয়। তখন কারাগারে পাগলা ঘন্টি বাজিয়ে জেল সুপারের নেতৃত্বে ঘটনাস্থলে গিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ বন্ধ করে সবাইকে যার যার ওয়ার্ডে পাঠিয়ে দেয়া হয়।
কক্সবাজার জেলা কারাগারের জেল সুপার মো: মোকাম্মেল হোসেন জানান, একরাম ও শাহজাহান আনচারীর মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির টাকা নিয়ে হাতাহাতি হলে আমরা দ্রুত নিয়ন্ত্রনে আনি। এরপর কারাগারের পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক কর্তৃপক্ষের নির্দেশে কারাবিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।
আমি বলতে চাই-বর্তমানে এই ঘটনার সুত্র ধরে একটি মহল আমার পরিবারকে হেয় প্রতিপন্ন করতে এখনো চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এটা নিছক আমার ভাই মার্কিন হত্যার ঘাতক ছিদ্দিকের সাথে আতাত করে সাংবাদিক ভাইদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে একটি মহল সংবাদে জড়িয়ে আমার পরিবারকে মিথ্যা বানোয়াট অপপ্রচার করে ষড়যন্ত্র করার পাঁয়তারা করছে। এতে কক্সবাজার কারাগারে ঘটে যাওয়া ঘটনাকে কেন্দ্র করে আমার ভাই এনাম মেম্বারসহ আমার ভাইদের প্রতি ঈর্ষান্বিত হয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে।
নতুন করে অনলাইনে আমার ভাইদের বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের যোগসাজস আছে বলে মিথ্যা সংবাদ প্রচার করছে। আমি উক্ত মিথ্যা সংবাদের তীব্র নিন্দা প্রতিবাদ জানাই। এরকম সামনে কেউ অপপ্রচারে লিপ্ত হলে তার বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হব। পাশাপাশি প্রকাশিত আংশিক সংবাদে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
মাওলানা নুরুল হক মোজাহেরী
পিতা-মৃত মোজাহের মিয়া
নাজিরপাড়া, টেকনাফ সদর, টেকনাফ, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •