আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
ফ্রান্সে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা তুলনামূলক কমেছে। দেশটিতে এ ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে আরও ৩৬৯ জনের। এ নিয়ে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ হাজার ৬১৪ জনে।

দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ফ্রান্সে ১৯৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত এক মাসে এটাই সবচেয়ে কম মৃত্যুর হার। ফ্রান্সে সাড়ে ৭ হাজারেরও বেশি রোগী নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন আছে।

চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ইউরোপ ও আমেরিকার মানুষ। শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৯ লাখের বেশি। আর করোনায় যে ২ লাখ মানুষ মারা গেছে তার এক চতুর্থাংশ, অর্থাৎ যুক্তরাষ্ট্রে ৫২ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় মৃত্যুতে শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে বেশিরভাগ ইউরোপের। ইতালিতে ২৬ হাজার ৩৮৪, স্পেনে ২২ হাজার ৯০২, যুক্তরাজ্যে ২০ হাজার ৩১৯, বেলজিয়ামে ৬ হাজার ৯১৭, জার্মানিতে ৫ হাজার ৮০৫ ও নেদার‍ল্যান্ডসে মারা গেছে ৪ হাজার ৪০৯ জন।

চীনে প্রাদুর্ভাব শুরু হলেও দেশটিতে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা এখন ৪ হাজার ৬৩২। তবে এশিয়ায় ৫ হাজার ৬৫০ মৃত্যু নিয়ে চীনের উপরে রয়েছে ইরান। তুরস্কে মারা গেছে ২ হাজার ৬০০ জনের বেশি মানুষ। এদিকে আক্রান্তের দিক দিয়ে চীন ও ইরানের উপরে রয়েছে তুরস্ক। দেশটিতে এখন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ৫ হাজার প্রায়।

এদিকে ভারত, পাকিস্তান, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফিলিপাইন, জাপান ও বাংলাদেশসহ দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে করোনায় সংক্রমণ আশঙ্কাজনক হারে বাড়তে শুরু করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •