রিয়াজ উদ্দিন ,পেকুয়া :

পেকুয়ায় কবির আহমদ চৌধুরী বাজারের এস.ডি সিটি সেন্টারে সুন্দরী ক্লথ স্টোরের মালিক মুস্তাফিজ সওদাগরের ছেলে ও কলেজ ছাত্র মীর রাহিম মোহাম্মদ তানজিরকে ছুরিকাঘাত করেছে দুবৃর্ত্তরা। এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে পেকুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। জখমী মীর রাহিম মো: তানজির উপজেলার সদর ইউনিয়নের শেখেরকিল্লাঘোনা গ্রামের বাসিন্দা। ২৫ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে এস.ডি সিটি সেন্টারে ছুরিকাঘাতের এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে জখমী মীর রাহিম মো: তানজিরের মা জেসমিন সোলতানা বাদী হয়ে ঘটনার দিন দুপুরে পেকুয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ সুত্র জানায়, ঘটনার দিন সকালে মীর রাহিম মো: তানজির এস.ডি সিটি সেন্টারে তার পিতার মালিকানাধীন সুন্দরী ক্লথ স্টোরে যান। এ সময় মুখমন্ডল থেকে কয়েকজন ছেলে দোকানের সামনে থুথু নিক্ষেপ করে। এ নিয়ে তানজির ও থুথু ফেলানো ছেলেদের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। দেশে করোনা ভাইরাস মহামারী চলছে। যেখানে সেখানে থুথু না ফেলতে ওই ছেলেদের তানজির নিষেধ করছিলেন। এ সময় থুথু ফেলানো কয়েকজন মিলে তানজিরের উপর চড়াও হন। তারা তানজিরকে সেখানে চড় থাপ্পড় দেন। দ্বিতীয় দফায় দুপুর সাড়ে ১১ টার দিকে একই ব্যক্তিরা মার্কেট থেকে তানজিরের বাড়ি শেখেরকিল্লাঘোনায় এসে হানা দেয়। এ সময় তাকে ছুরিকাঘাত করে জখম করেছে। জেসমিন সোলতানা বাদী হয়ে পেকুয়া থানায় হামলাকারী সাবেকগুলদি এলাকার দিদারুল ইসলাম, মো: ইমন, মো: রুবেল, শিলখালীর ইউপির জসিম উদ্দিনের ছেলে মো: সাজ্জাদসহ অজ্ঞাত আরও ৬/৭ জনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ দেয়। মুস্তাফিজ সওদাগরের স্ত্রী জেসমিন সোলতানা জানান, আমার ছেলেকে মারাত্মকভাবে ছুরিকাঘাত করে। হাতের আঙ্গুলে ছুরির জখম আছে। দাঁতে ঘুষি মেরেছে। ছেলে চট্টগ্রামের একটি কলেজে একাদশ শ্রেনীতে পড়ে। পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা স্বীকার করেন। তদন্তপূর্বক আইনাননুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সাংবাদিকদের জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •