মো. নুরুল করিম আরমান, লামা:
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগির ভয়ে বান্দরবানের লামা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে অন্য সব রোগিরা পালিয়ে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ৫০ শয্যার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি এখন রোগি শূন্য। এ ছাড়া রোগীতো দূরের কথা কোন মানুষ ভয়ে এখন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আশেপাশেও যাচ্ছে না।

করোনায় আক্রান্ত লামা সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা মুসলিম পাড়ার বাসিন্দা রাশেদা বেগমসহ তার স্বামী জামাল উদ্দিনকে গত ২২ এপ্রিল রাত সাড়ে এগারোটার সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে কর্তৃপক্ষ। করোনায় আক্রান্ত রোগীকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হচ্ছে; এমন সংবাদ পেয়ে ভর্তিরত রোগীরা ভয়ে ও আতঙ্কে রাতেই স্ব স্ব উদ্যোগে রোগীরা রাত ২টার মধ্যে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছেডে চলে যায়। বর্তমানে করোনা রোগীসহ তার স্বামী হাসপাতালে আইসোলেশনে রয়েছেন।

এ ছাড়া হাসপাতাল কোন রোগী না থাকায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শুনশান নিরবতার পরিবেশে ভয়ে কাতর কর্তব্যরত সেবিকারা। তারা জানায়, যেখানে ৫০-৬০জন রোগী ভর্তি থাকতো সেখানে এখন একজনও নেই। তাই রোগীগুলো চলে যাওয়ার কারণে ওয়ার্ডগুলো এখন ভুতুড়ে পরিবেশে পরিণত হয়েছে। এতবড় একটি ভবনে কোন মানুষ জন না থাকায় ভয়ও লাগছে। এদিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পাড়া এলাকার বাসিন্দা সমির উদ্দিন ও হারুণ বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা রোগী ভর্তির কারণে ভয় লাগছে। তাই আপাতত স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এলাকার রাস্তার পরিবর্তে অন্য একটি রাস্তা দিয়ে পাড়ায় যাতায়াত করছি।

এ বিষয়ে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদুল হক বলেন, অনেক বুঝানো শর্তেও রোগীরা ভয়ে না বলে চলে গেলে কিছু করার নেই। উর্ধতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে করোনা আক্রান্তকে ভর্তি দেয়া হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •