এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরসভার বাটাখালী এলাকায় সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক লকডাউন লঙ্ঘনে গোপনে বিল্ডিং নির্মাণ কাজ করার অভিযোগে ভবন মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে উপজেলা ভ্রাম্যমান আদালত। বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল দুপুরে পৌরসভার ৩নম্বর ওয়ার্ডের বাটাখালী এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো.তানভীর হোসেন। ওইসময় অপরাধ স্বীকার করা সাপেক্ষে আদালত ভবন মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

অপরদিকে একইসময়ে আদালত চকরিয়া উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় করোনা ভাইরাস এর সংক্রমন প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ ও বাজার মনিটরিং এর জন্য মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় জনগনকে সচেতন করার পাশাপাশি আইন অমান্যকারীদের দুইটি মামলায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: তানভীর হোসেন বলেন, করোনা সংক্রমণের শুরু থেকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষথেকে উপজেলার প্রত্যেকটি ইউনিয়ন জনবুহুল স্টেশন ও হাট-বাজার এলাকায় জনসচেতনতা বৃদ্ধি, নিত্যপণ্যের বাজার মনিটরিং কার্যক্রম এবং দোকানপাঠ, বাজার ও খেলার মাঠে জনসমাগম না করার জন্য প্রশাসনের পক্ষথেকে সব শ্রেণী পেশার মানুষজনকে উদ্বুদ্ধকরণ করা হচ্ছে।

অনুরূপভাবে বৃহস্পতিবারও উপজেলার বিভিন্ন স্থানে গিয়ে উল্লেখিত বিষয়ে সর্বসাধারণকে উদ্বুদ্ধকরণ করা হয়েছে। এছাড়া বিনাপ্রয়োজনে কাউকে ঘরের বাইরে বের না হতে মাইকিং করেও নির্দেশনা দেয়া হয় এবং লকডাইন সময়ে কোন ধরণের কনস্ট্রাকশন (বিল্ডিং) নির্মাণ কাজ না করতে নিষেধ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, সংক্রমণ সময়ে লকডাউন নির্দেশনা অমান্য করে বাটাখালী এলাকায় বিল্ডিং কনস্ট্রাকশনের কাজ করার দায়ে এক ভবন মালিককে ১০হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। পাশাপাশি কাজ থেকে বিরত থাকতে তাকে সর্তক করা হয়েছে।

এদিকে একইদিন চকরিয়া উপজেলার নবাগত ইউএনও সৈয়দ সামসুল তাবরীজ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে হাট-বাজারে নিত্যপণ্যের বাজার মনিটরিং করেছেন। এদিন সকালে তিনি উপজেলার খুটাখালী বাজার পরিদর্শন করেন। ওইসময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুর রহমান এবং বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ ও বাজার ইজারাদারের সঙ্গে কথা বলেন। মাহে রমজান উপলক্ষে মুল্য তালিকা প্রদর্শন পুর্বক সকলধরণের নিত্যপণ্য বিক্রি করতে নির্দেশ দেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •