তারেকুর রহমান:
নিজের জন্মদিনে ২৫০ জন ছিন্নমূল এতিম-পথশিশু ও শিশু-কিশোর সংগঠনের ১০০ জনসহ সাড়ে ৩০০ জনকে খাওয়ানোর মাধ্যমে জন্মদিন পালন করলেন কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি অনুপ বড়ুয়া অপু।
মঙ্গলবার (২১ এপ্রিল) সন্ধ্যায় কক্সবাজার সদর মডেল থানাস্থ নিজ বাড়িতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ছোট্ট পরিসরে জন্মদিন পালিত হয়। এ সময় তাঁর পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে জন্মদিন উপলক্ষে শহরের ‘শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র’ এর ২০০ জন শিশু এবং প্রতিবেশী ৫০ জন সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের খাবারের ব্যবস্থা করেন কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক এই সাধারণ সম্পাদক।
কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার বর্তমান সহ-সভাপতি অনুপ বড়ুয়া অপু বলেন, ‘আমার জন্মদিনটা আমি ধুমধাম করে বন্ধু-বান্ধব ও আত্মীয়স্বজনদের সাথে নিয়ে বড় পরিসরে পালন করতে পারতাম। কিন্তু করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর প্রাদুর্ভাবে জাতির যে ক্রান্তিকাল চলছে তাতে নিজেও ব্যথিত হয়ে বড় আয়োজনের মাধ্যমে নিজের জন্মদিন পালন করি নি। ভাবছি এই দুঃসময়ে জন্মদিনটা অনাদর অবহেলায় বড় হওয়া ছিন্নমূল পথশিশু ও এতিমদের সাথে উদযাপন করবো। তাদের সাথে জন্মদিনের আনন্দ ভাগাভাগি করবো। তাই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ক্ষুদ্র প্রয়াসে ২৫০ জন এতিম-পথশিশু ও জেলার সর্বপ্রথম আমার প্রিয় শিশু-কিশোর সংগঠন ‘সৈকত খেলাঘর আসর’ এর ১০০ শিশু-কিশোরদের জন্য খাবারের ব্যবস্থা করেছি। এতে মনে হলো অন্যান্য সময়ের চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি আনন্দ পেয়েছি। এই শিশুরা আমাদের সন্তান। আমরা ওদের অভিভাবক। এমনটাই মনে করা আমাদের সকলের উচিত। আর মা-বাবার কাছে তাদের সন্তানের আনন্দটাই সবচেয়ে মূল্যবান। তাই ওদের আনন্দ আমাদের আনন্দ। ওদের আনন্দ দিতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •