আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় চীনের পর এবার ইরানকেও ছাড়িয়ে গেল তুরস্ক। ইউরোপ -আমেরিকার পর এখন সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা তুরস্কে।

মঙ্গলবারের হিসাব অনুযায়ী, দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার ৬শ ৭৪। গত কয়েকদিনে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে।

এদিকে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে আরও ১২৩ জন। তুরস্কের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। এখন পর্যন্ত দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা ৯০ হাজার ৯৮০ এবং মারা গেছে ২ হাজার ১৪০ জন।

অপরদিকে, সোমবারের হিসাব অনুযায়ী, ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমিত কোভিড-১৯ রোগী হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৭৭ জন এবং মারা গেছেন ১২৭ জন।

তার আগের দিন নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৩ হাজার ৭৮৩ এবং মারা গেছে ১২১ জন। গত কয়েকদিনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছেই।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহান শহরে প্রথমবার করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটে। এরপর থেকেই তা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এখন পর্যন্ত ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে এই ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে।

তবে চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাস এখন অন্যান্য দেশে দাপট দেখিয়ে বেড়ালেও গত কয়েক মাসের প্রচেষ্টায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে চীন।

এখন পর্যন্ত আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যায় শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় দেশটির ধারে কাছে নেই কোনো দেশ। যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে।

এদিকে তুরস্কে প্রথমদিকে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা ছিল একেবারেই কম। কিন্তু সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই। আক্রান্তের সংখ্যায় বর্তমানে ৭ম অবস্থানে রয়েছে তুরস্ক।

আগামী ২২ এপ্রিল মধ্যরাত থেকে তুরস্কের চারদিনের কারফিউ জারি থাকবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান। করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের অংশ হিসেবেই এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •