এহসান আল কুতুবীঃ

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধে কক্সবাজার জেলাকে লকডাউন ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসক। ফলে, সারাদেশের মতো কক্সবাজারেও ঘরবন্দী হয়ে পড়েছে সব শ্রেনী পেশার মানুষ। কর্মস্থল বন্ধ হয়ে সবচেয়ে বেশি অসহায় হয়ে পড়েছে দিনমজুর মানুষগুলো। পাশাপাশি বোবাকান্না শুরু হয়েছে মধ্যবিত্ত পরিবারেও। আর এ সংকটে পাশে দাঁড়াতে শুরু করেছে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী, জনপ্রতিনিধিসহ সচেতন মহল। তারা তাদের সামর্থ্য অনুযায়ী সম্মিলিত তহবিল গঠনের মাধ্যমে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অন্নহীন খেটে খাওয়া মানুষসহ ঘরবন্দী অসহায় সব মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে। মহামারী করোনার সংক্রমণ রোধে জনগনকে ঘর থেকে বের না হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে সরকারি ঘোষণা আসার পর কক্সবাজারে প্রথম করোনা সহায়তা তহবিল গঠনের উদ্যোগ নেন জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, সাংবাদিক ইমরুল কায়েস ও এইচ এম নজরুলসহ আরও বেশ ক’জন উদ্যোমী। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলও গঠন করেন এই সহায়তা তহবিল। পাশাপাশি বিভিন্ন উপজেলা, পৌরসভা ও ইউনিয়নেও বিভিন্ন নামে করোনার দুঃসময়ে মানুষের পাশে দাঁড়াতে চলছে সহায়তা তহবিল গঠন। এমন কঠিন মূহুর্তে এসব করোনা সহায়তা তহবিল যেনো তৃষ্ণার্ত মানুষের মুখে পানি তুলে দেওয়ার মতো।

ইতিমধ্যে সদর উপজেলার খুরুশকুল ইউনিয়নেও গঠন করা হয়েছে করোনা সহায়তা তহবিল।

তহবিল গঠনের বিষয় নিয়ে কথা হয় উদ্যোক্তা ও প্রধান সমন্বয়ক ও খুরুশকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন জসিম এর সাথে।

তিনি জানিয়েছেন, খুরুশকুলের সমাজসেবী, ব্যবসায়ী চাকরিজীবী, রাজনীতিবিদ ও বিত্তবানদের সার্বিক সহযোগিতায় গঠন করা হয়েছে করোনা সহয়তা তহবিল। করোনায় কর্মহীন গৃহবন্দী এক হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিতে কাজ শুরু করেছেন তারা। ইতিমধ্যে দুই শতাধিক পরিবারের মাঝে এসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। তারা খাদ্য সামগ্রীর নাম দিয়েছেন ‘ভালোবাসার উপহার’।

তিনি আরও জানান, গত ১৯ এপ্রিল থেকে মধ্যবিত্ত ও নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের মাঝে এ খাদ্য সামগ্রী বিতরণ শুরু হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এক হাজার পরিবার টার্গেট করা হলেও যারাই খাদ্য সংকটে পড়বে, সবার ঘরে খাদ্য সামগ্রী পৌছানোর ব্যবস্থা করা হবে। আমার ইউনিয়নে কেউ না খেয়ে থাকতে পারবেনা ইনশাআল্লাহ। যতদিন এ করোনা সংকট চলবে, ততদিন পর্যন্ত আমাদের খাদ্য সহায়তা চলবে।

এ তহবিল গঠনে শুরু থেকে যারা শ্রম, মেধা ও অর্থ দিয়ে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন তাদের মধ্যে সাবেক ছাত্রনেতা আলিম উদ্দিন ও আবদুস শুক্কুর কোম্পানি অন্যতম৷ তাদের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এক ঝাঁক উদীয়মান তরুণ ও উদ্যোমীরা কাজ করছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •