ইমাম খাইর, সিবিএনঃ
কক্সবাজার জেলা লকডাউন ঘোষণার প্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা মতে কয়েকদিন কক্সবাজারের শাখা ব্যাংকগুলো বন্ধ থাকলেও রবিবার থেকে সচল হয়েছে।

প্রয়োজনীয় কাজ সারতে সকাল থেকে ব্যাংকে ভিড় করছে গ্রাহকরা।

নির্ধারিত ব্যাংক টাইম সকাল ১০ টার ঘন্টাদেড়েক আগে থেকেই অসংখ্য গ্রাহক ব্যাংকের সামনে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে থাকে।

নির্ধারিত সময়ের আধাঘন্টা পার হলেও লেনদেন শুরু হয় নি। ভিড় সামলাতে সংশ্লিষ্ট কর্তারা হিমশিম খাচ্ছে।

সকালে সরেজমিন দেখা গেছে, ব্যাংকগুলোর ভবন ছাড়িয়ে রাস্তায় লাইন ধরেছে গ্রাহকরা। করোনা পরিস্থিতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নির্দেশনা থাকলেও মানছে না কেউ। অধিকাংশ লোকের মুখে মাস্ক নেই।

বিশেষ করে, লালদীঘি পাড়ের সোনালী ব্যাংকের নীচে মারাত্মক জটলা।

বেলা ১ টা পর্যন্ত ব্যাংকিং লেনদেন চলবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছে।

লালদীঘি পাড়ের সোনালী ব্যাংকের দৃশ্য।

রবিবার সকাল সাড়ে দশটায় ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড কক্সবাজার শাখা ব্যবস্থাপক মুহাম্মদ জামাল উদ্দিনের সাথে কথা হয়।

তিনি জানিয়েছেন, কম্পিউটারগুলো সক্রিয় করতে একটু সময় হচ্ছে। প্রথম দিন হওয়াতে গ্রাহকদের ভিড় একটু বেড়েছে। তারা সাধ্যমত সেবা দেয়ার চেষ্টা করছেন। প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশ মতে লেনদেন চলবে।

আন্তঃব্যাংক লেনদেন, ফান্ড ট্রান্সফার, ক্লিয়ারিং, অটোমেটেড ক্লিয়ারিং হাউস, মেশিনের মাধ্যমে জমা ও উত্তোলন করা যাবে। প্রধান কার্যালয়ের নির্দেশনা পেতে একটু সময় হচ্ছে। এরপর সবকিছু স্বাভাবিক নিয়মে চলবে।

মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন জানান- রবিবার, মঙ্গলবার, বৃহস্পতিবার কক্সবাজার শাখা এবং সোমবার, বুধবার লিংকরোড শাখা খোলা রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে।

প্রধান কার্যালয়ের অনুমোদন সাপেক্ষে কার্যকর হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •