সিবিএন ডেস্ক:
করোনাভাইরাসে দেশে সবচেয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ঢাকা বিভাগে। এ বিভাগে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৩৭০ জন। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতেই ৭৪০ জন। আর সবচেয়ে কম আক্রান্ত হয়েছে খুলনা বিভাগে। এ বিভাগে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ জন।

দেশে করোনা সংক্রমণের পর থেকে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের এই চিত্র তুলে ধরেছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)।

আইইডিসিআরের তথ্য মতে, ঢাকা বিভাগে ঢাকা মহানগরীতে ৭৪০ জন, ঢাকা জেলায় ২৮ জন, গাজীপুরে ১১৭ জন, কিশোরগঞ্জে ৩৩ জন, মাদারিপুরে ২৩ জন, মানিকগঞ্জে ৫ জন, নারায়ণগঞ্জে ২৮৯ জন, মুন্সিগঞ্জে ২৭ জন, নরসিংদীতে ৬৫ জন, রাজবাড়ীতে ৭ জন, টাঙ্গাইলে ৯ জন, শরীয়তপুরে ৬ জন, গোপালগঞ্জে ১৭ জন।

ঢাকা মহানগরীর চিত্র

ঢাকা মহানগরীতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৭৪০ জন। এখানে সবচেয়ে বেশি করোনায় আক্রান্ত এলাকা পুরান ঢাকার ওয়ারী, যেখানে ২৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

ঢাকা মহানগরীর বাকি এলাকাগুলো হলো- বাসাবোতে ১৭ জন, বংশালে ১৫ জন, ধানমন্ডিতে ১৮ জন, হাজারীবাগে ১৫ জন, যাত্রাবাড়ীতে ২৩ জন, লালবাগে ২১ জন, মিটফোর্ডে ১৭ জন, মোহাম্মদপুরে ২৬ জন, তেজগাঁওয়ে ১৬ জন, টোলারবাগে ১৯ জন ও উত্তরায় ২০ জন।

আদাবরে ৫ জন, আগারগাঁওয়ে ২ জন, আর্মানিটোলায় ১ জন, আশকোনায় ১ জন, আজিমপুরে ১১ জন, বাবু বাজারে ১১ জন, বাড্ডায় ৮ জন, বেইলি রোডে ৩ জন, বনানীতে ৮ জন, বানিয়ানগরে ১ জন, বসুন্ধরায় ৫ জন, বেগুনবাড়িতে ১ জন, বেগম বাজারে ১ জন, বেড়িবাঁধে ১ জন, বকশীবাজারে ১ জন, বসিলায় ১ জন, বুয়েট এলাকায় ১ জন, ক্যান্টনমেন্টে ১ জন, সেন্ট্রাল রোডে ১ জন, চাঁনখারপুলে ৬ জন, চকবাজারে ১০ জন, ঢাকেশ্বরীতে ১ জন, ডেমরায় ২ জন, ধুলাইখালে ১ জন, দয়াগঞ্জে ১ জন, ইস্কাটনে ৬ জন, ফরিদাবাগে ১ জন, ফার্মগেটে ১ জন, গেন্ডারিয়ায় ১৪ জন, গোরানে ১ জন।

গোপীবাগে ৩ জন, গ্রিন রোডে ১০ জন, গুলিস্তানে ৩ জন, গুলশানে ১৩ জন, হাতিরঝিলে ১ জন, হাতিরপুলে ৩ জন, ইসলামপুরে ২ জন, জেইলগেটে ২ জন, জিগাতলায় ৫ জন, জুরাইনে ৩ জন, কল্যাণপুরে ১ জন, কামরাঙ্গীরচরে ৪ জন, কাজীপাড়ায় ৩ জন, কাওরান বাজারে ১ জন, কঁচুখেতে ১ জন, খিলগাঁও ১ জন, খিলক্ষেতে ১ জন, কলতাবাজারে ১ জন, কদমতলীতে ২ জন, কতোয়ালীতে ৪ জন, কুড়িলে ১ জন, লক্ষ্মীবাজারে ৪ জন, মালিতলায় ১ জন, মালিবাগে ৪ জন, মানিকদিতে ১ জন, মাতুয়াইলে ১ জন, মিরহাজীরবাগে ২ জন।

মিরপুর-১-এ ৮ জন, মিরপুর-৬ এ ৩ জন, মিরপুর-১০ এ ৭ জন, মিরপুর-১১ তে ১৩ জন, মিরপুর-১২ তে ১১ জন, মিরপুর-১৩ তে ২ জন, মিরপুর-১৪ তে ৬ জন, মগবাজারে ১১ জন, মহাখালীতে ১২ জন, মহনপুরে ১ জন, মতিঝিলে ১ জন, মুগদায় ৩ জন, নবাবপুরে ১ জন, নবাবগঞ্জে ২ জন, নাড়িন্দাতে ৩ জন, নাখালপাড়ায় ৫ জন, নিকুঞ্জে ১ জন, পীরেরবাগে ২ জন, পুরানা পল্টনে ২ জন, রাজারবাগে ১৩ জন, রামপুরায় ৪ জন, রমনায় ৫ জন, রায়েরবাগে ১ জন, রায়েরবাজারে ১ জন, সবুজবাগে ২ জন, সদরঘাটে ১ জন, সায়েদাবাদে ১ জন, সায়েন্স ল্যাবরেটোরিতে ১ জন।

শাহ আলীবাগে ২ জন, শাহবাগে ৬ জন, শাখারীবাজারে ৭ জন, শান্তিবাগে ১ জন, শ্যামপুরে ১ জন, শান্তিনগরে ৭ জন, শ্যামলীতে ৪ জন, শ্যাওড়াপাড়ায় ১ জন, শেখেরটেকে ১ জন, সোয়ারীঘাটে ৩ জন, সিদ্ধেশরীতে ৩ জন, শনিরআখড়ায় ১ জন, সূত্রাপুরে ৯ জন, তেজতুরী বাজারে ১ জন, উর্দু রোডে ১ জন ও ভাটারায় ১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

অন্যান্য বিভাগের চিত্র

চট্টগ্রাম বিভাগে মোট ৯২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে চট্টগ্রাম জেলায় ৩৭ জন, কক্সবাজারে ১ জন, কুমিল্লায় ১৫ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৯ জন, লক্ষ্মীপুরে ১৮ জন, বান্দরবানে ১ জন, নোয়াখালীতে ২ জন, ফেনীতে ১ জন ও চাঁদপুরে ৮ জন।

সিলেট বিভাগে মোট ৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মৌলভীবাজারে ২ জন, সুনামগঞ্জে ১ জন, হবিগঞ্জে ১ জন ও সিলেটে ৩ জন।

রংপুর বিভাগে মোট ৩৭ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে রংপুরে ৩ জন, গাইবান্দায় ১২ জন, নীফামারীতে ৬ জন, লালমনিরহাটে ২ জন, কুড়িগ্রামে ২ জন, দিনাজপুরে ৮ জন, রংপুরে ১ জন ও ঠাকুরগাঁওয়ে ৩ জন।

খুলনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৪ জন। এর মধ্যে খুলনা জেলায় ১ জন, নড়াইলে ২ জন এবং চুয়াডাঙ্গায় ১ জন।

ময়মনসিংহ বিভাগে মোট ৪২ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ময়মনসিংহ জেলায় ১৮ জন, জামালপুরে ১২ জন, নেত্রকোনায় ৭ জন এবং শেরপুরে ৫ জন।

বরিশাল বিভাগে মোট ৩১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে বরগুনায় ৫ জন, বরিশালে ১৭ জন, পটুয়াখালীতে ২ জন, পিরোজপুরে ৪ জন ও ঝালকাঠিতে ৩ জন।

রাজশাহী বিভাগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৮ জন। তার মধ্যে জয়পুরহাটে ২ জন, পাবনায় ১ জন, বগুড়ায় ১ জন এবং রাজশাহীতে ৪ জন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •