প্রিয় হোয়াইক্যং বাসী আসসালামু আলাইকুম।
ঘরে থাকেন সুস্থ থাকেন।

বলতে বলতে করোনা নামক ভয়াবহ ভাইরাসটি চীন থেকে বিভিন্ন দেশ পার হয়ে আপনার আমাদের ঘরের সামনে চলে আসছে।

সবাই জানেন কক্সবাজারের প্রথম যে করোনা ভাইরাসের রোগী পাওয়া গেছে তার বাড়ি নাইক্ষংছড়ি। নাইক্ষংছড়ির থেকে বালুখালী আর বালুখালী থেকে হোয়াইক্যং বেশী দূরে না।সেই একজন তাবলীগ ফেরত লোক। আর একজন তাবলীগের সাথে সবাই কেমন করে মিলেমিশে  চলে তা সবার জানা আছে। সেই লোকটি কোথায় কোথায় গেছে বা কার কার সাথে তার হাতের স্পর্শ হয়ছে এবং কোন গাড়িতে করে যাতায়ত করছে তা আমরা জানিনা।

হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ১ নং ও ২ নং ওয়ার্ডের যে সমস্ত টমটম বা সিএনজি গুলো আছে সেগুলো প্রতিনিয়ত হোয়াইক্যং ইউনিয়ন থেকে পালংখালী ইউনিয়নে যাতায়াত করে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী বসবাস এলাকা কুতুপালং ক্যাম্পের লোকজন নিয়ে। আর সেই টমটমের মাধ্যমে কিছু লোকজন নির্ভয়ে নিশ্চিন্তে যাতায়াত করেন বা যাতায়াত করে এমন লোকজনের সাথে প্রতিনিয়ত মেলামেশা করেন। সরকারের নির্দেশ অমান্য করে যারা রাস্তাঘাটে মাঠ-ক্ষেতে চলাফেরা করতেছে তারা এই নির্দেশ অমান্য করে এমন কি অর্জন করতে পারছে ো আমি জানিনা।

আমাদের দেশে দিন দিন করোনা ভাইরাসের রোগী যে হারে বেড়ে যাচ্ছে সেই হারে কিন্তু সুস্থ হচ্ছে না। আপনি আমি সচেতন না হলে আমাদের অকাল মৃত্যু অনিবার্য হবে।এই মৃত্যু কেমন ভয়াবহ তা সবাই কম বেশি জানেন।

গতকাল কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষনের মধ্যেই করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে গণমাধ্যমে দেখা যাচ্ছে। কেন মারা গেছে জানেন? তিনিও হয়তো আমাদের মত অবহেলা করে সচেতন হননি।

এটা একটা মহামারী রোগী। আমেরিকা ইতালির স্পেনের মত শক্তিশালী দেশের তুলনায় বাংলাদেশ কিছুই না। এই ভাইরাস নিয়ে বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দেশগুলো হিমসিম খাচ্ছে। ১৭এপ্রিল আমাদের বাংলাদেশ নতুন শনাক্ত হয়ছে ২৬৬ জন মোট শনাক্ত ১৮৩৮জন, নতুন মৃত্যু :১৫ জন, মোট মৃত্যু :৭৫জন। এবার একটু হলেও ঘরে থাকুন।

সর্বোপরি আমার হোয়াইক্যং ইউনিয়ন বাসীর প্রতি হাতজোড় করে অনুরোধ করছি, দয়া করে আপনার ঘরে থাকুন। আপনার সন্তানের খোঁজ খবর রাখুন। এমন কি জরুরি কাজে সে রাস্তায় যাচ্ছে? এমন কি গুরুত্বপূর্ণ আলাপের জন্য বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিচ্ছে? আমার আপনার সচেতন না হলে এই দেশ এই জাতি এই পরিবার কে রক্ষা করবে কে?

সরকার যথেষ্ট পরিমাণ সচেতন আছে, এখন আমাদের সচেতনতা দরকার।
প্লিজ দয়া করে সবাই সচেতন হোন।  এবার অন্তত পক্ষে নিজে পরিবারের কথা চিন্তা করে ঘরে থাকুন। জাতিকে বাঁচান।

 

রাজিবুল হক চৌধুরী রাজ

মনির ঘোনা হোয়াইক্যং টেকনাফ কক্সবাজার।
আইন অনুষদ
কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •