আবদুল মজিদ, চকরিয়া:
চকরিয়া উপজেলার পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়নে বসতভীটার জমির সীমানা বিরোধে একটি গাছ কাটাকে কেন্দ্র করে হামলা চালিয়ে একই পরিবারের ৪জন (সহোদর)কে কুপিয়ে গুরুতর জখমের ঘটনায় মামলা করায় এবার মা-বাবাকে কুপালো প্রতিপক্ষরা।

শুক্রবার (১৭ এপ্রিল) সকালে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সিকদারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মামলার বাদী আইয়ুব আলী (৬২) ও তার স্ত্রী ছাবিরা বেগম ৫০)সহ ৩ জনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় চেয়ারম্যান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতা আরো ৬/৭জনকে আসামী করে ১৫ এপ্রিল চকরিয়া থানায় মামলা (নং ১৭/২০) দায়ের করা হয়েছে। ওই মামলায় ক্ষিপ্ত হয়ে অদ্য ১৭ এপ্রিল সকালে

অভিযোগে জানা গেছে, পূর্ববড়ভেওলা সিকদারপাড়া গ্রামে বসতভীটার সীমানা নিয়ে মৃত ইউছুপ আলীর পুত্র আইয়ুব আলী গংয়ের সাথে কবির আহমদ-বশির আহমদ গংয়ের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। ঘটনারদিন আইয়ুব আলী গংয়ের বসতভীটার একটি আমগাছ কাটার সময় বাধা সৃষ্টিসহ পূর্বপরিকল্পিতভাবে দেশীয় তৈরী ধারালো অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে হামলা চালানো হয়েছে। হামলায় গুরুতর আহত হন আইয়ুব আলী সওদাগরের ৪সন্তান মোঃ রাশেদুল ইসলাম (৩৪), শাহেদুল ইসলাম (৩২), ওয়াহিদুল আলম (২৩) ও তানজীমুল ইসলাম (১৬)। এঘটনায় আইয়ুব আলী সওদাগর বাদী ১৫ এপ্রিল চকরিয়া থানায় মামলা (নং ১৭/২০) দায়ের করেন।

এতে আসামী করা হয়েছে শিব্বির আহমদের পুত্র শাকের উল্লাহ, কবির আহমদের পুত্র জমির উদ্দিন, মোঃ এমরান, মৃত আলমের পুত্র নুরুল হোছাইন, আবদুল মালেক, মৃত সোলাইমানের পুত্র কবির আহমদ, তার স্ত্রী নিলুফা বেগম, বশির আহমদের স্ত্রী মৃত রুম্পা বেগম, পুত্র মোঃ শওকতসহ অজ্ঞাতা আরো ৬/৭জনকে।

এদিকে হামলার ঘটনায় মামলা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে উল্লেখিত আসামীরাসহ তাদের আরো সহযোগি মৃত মোঃ আলম, আবদুল খালেক প্রকাশ কালু ডাকাত ও নুরুল হোসেন, মৃত খালেক আহমদের পুত্র মুজিবুল হক নতুন করে যুক্ত হয়ে নতুন করে বাদী আইয়ুব আলী সওদাগর (৬২)কে বাড়ির পাশ্ববর্তী চায়ের দোকান থেকে ধরে নিয়ে হামলা চালায়। তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে হত্যার চেষ্টায় জখম করেছে। তাকে উদ্ধারে স্ত্রী ছাবিরা বেগম (৫০) ও আনু মিয়ার স্ত্রী ইছমত আরা (৩০) এগিয়ে গেলে তাদেরকেও কুপিয়ে জখম করে। তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত আইয়ুব আলী সওদাগরকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রেফার করেছেন। এদিকে ৪সন্তানকে কুপিয়ে জখমের পর মামলা করায় ক্ষিপ্ত হয়ে নতুন করে মা-বাবার উপর হামলার ঘটনায় এলাকায় চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ (ইন্সপেক্টর) সেকান্দর আলী জানান, ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় পূর্ববড়ভেওলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনোয়ারুল আরিফ দুলালসহ একদল পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসি। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। হামলায় অভিযুক্তসহ আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, প্রথম ঘটনায় মামলা নেয়া হয়েছে। নতুন সৃষ্ট ঘটনা নিয়েও লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান চলছে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •