মরণব্যাধি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনে থমকে গেছে সারা দেশের মতো কক্সবাজার জেলার চকরিয়া উপজেলাধীন ৪ নং বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের মানুষের দৈনিন্দন কর্ম। চকরিয়া উপজেলা হতে উক্ত ইউনিয়ন দূরবর্তী হওয়ার সব সময় সরকারের নানা সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত। অত্র ইউনিয়নের হলো কৃষিবান্ধব ইউনিয়ন।সবার জীবিকা নির্বাহের ক্ষেত্র কৃষি কাজ হওয়ায় জনসাধারণ অনেক কষ্টে দিন যাপন করতেছে। মৌসুমি ফলন ভালো হওয়ার কারনে আরো বিপাকে কৃষকরা । লক ডাউনের কারনে ফলনকৃত কাঁচা সবজির বিক্রির ক্ষেত্রে নানা জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে। ফলনকৃত কাঁচা সবজির গুলো আড়ৎ বা সাপ্তাহিক বাজারে নিয়ে ও বিক্রি করা যাচ্ছে না। এমন অবস্থায় উৎপাদিত সবজি গুলো ক্ষেতে নষ্ট হয়ে যাচ্ছ। পাশ্ববর্তী লামা উপজেলায় ও লক ডাউনের কারনে সাপ্তাহিক বাজার সহ সব ধরনের বেচা বিক্রি বন্ধ রয়েছ।

চকরিয়া উপজেলায় বিভিন্ন ইউনিয়নে নানা সুযোগ সুবিধা থাকলে ও বমু বিলছড়ি ইউনিয়নটি উক্ত উপজেলা থেকে দুরবর্তী ও দূর্গম এলাকায় হওয়ায় তেমন কোন সরকারি সাহায্যে পৌছায়নি। ব্যক্তিগত ভাবে কিছু ত্রাণ সামগ্রী দিলে ও আর কোন ত্রাণ সামগ্রী অত্র ইউনিয়নে অাসেনি। প্বাশবর্তী উপজেলা পার্বত্য উপজেলা হওয়ায় অারো বিপাকে বমু বিলছড়ি ইউনিয়নের জনসাধারণ।

অত্র ইউনিয়নের জনসাধারণ অনেক হত-দরিদ্র হওয়ার তাদের জীবনযাত্রা অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে। তাই সামাজের বৃত্তবানদের ও উপজেলা প্রশাসনকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য অনুরোধ রইল।

না হয় মরণব্যাধি করোনা ভাইরাসের আগে এই নিম্নবিত্ত পরিবার গুলো না খেয়ে মারা যাওয়ার উপক্রম হবে ।

মোঃ দিদারুল ইসলাম

বমু বিলছড়ি ইউনিয়ন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •