সিবিএন ডেস্ক:
করোনাভাইরাসের প্রকোপ রুখতে লকডাউনের মেয়াদ আরও ১৯ দিন বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ভারত। দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মঙ্গলবার দেয়া এক ভাষণে এই ঘোষণা দেন। তবে করোনার প্রভাবমুক্ত এলাকায় কিছুটা ছাড় দেয়া হতে পারে ইঙ্গিত দিয়েছেন মোদি।

এদিন ভাষণে মোদি বলেন, সব রাজ্যই চেয়েছে লকডাউন বাড়ানো হোক। তাই করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের কড়া নিয়ম মানতে হবে। যদি নতুন কোনও হটস্পট তৈরি না হয়, সেক্ষেত্রে এইভাবে নিয়ম শিথিল করা হবে। তারপরও অবশ্যই নিয়ম মানতে হবে।

মোদি জানান, বুধবার এই ব্যাপারে গাইডলাইন জানিয়ে দেওয়া হবে। দিন আনা দিন খাওয়া মানুষের কথা মাথায় রেখে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।

মোদি বলেন, অন্যান্য দেশের সঙ্গে সঙ্কটের সময় তুলনা করা উচিৎ নয়। তবু কিছু সত্যিকে অস্বীকার করা যায় না। অনেক দেশে হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে। ভারত যদি ঠিক সময় ব্যবস্থা না নিত, তাহলে আজ ভারতের কী অবস্থা হত, সেটা ভেবেই আমি শিউরে উঠি। ভারত সমস্যা বাড়ার জন্য অপেক্ষা করেনি, বরং আগে থেকেই সমস্যা দূর করার চেষ্টা করেছে।

দেশবাসীকে ধন্যবাদ জানিয়ে মোদি বলেন, দেশে সারা বছরই উৎসব চলে। যেমন আজ (মঙ্গলবার) পয়লা বৈশাখ। কিন্তু তবু সংযমের মধ্যে দিয়ে উৎসব অনুষ্ঠান পালন করেছেন সাধারণ মানুষ। অনেকেই ঘর পরিবার ছেড়ে দূরে রয়েছেন। লকডাউনের সময় আপনারা অনেক কষ্ট করেছেন। আপনারা দেশের স্বার্থে একজন সৈনিকের মতো কাজ করেছেন। আপনাদের ত্যাগের জেরে ক্ষয়ক্ষতি অনেকটাই সামলানো গিয়েছে।

লকডাউনের জেরে খাদ্যসঙ্কট তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। টান পড়ছে অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের। ফলে দাম বাড়ছে। এমন অভিযোগের জবাবে মোদি বলেন, দেশে ওষুধ, খাদ্য ও নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী পর্যাপ্ত পরিমাণে মজুত রয়েছে। এ ছাড়া কোভিড-১৯ এর মোকাবিলায় দেশে ৬০০ হাসপাতাল তৈরি রয়েছে। সেই সংখ্যা আরও বাড়বে।

সব শেষে সাতটি উপদেশ বা পরামর্শ দিয়েছেন মোদি। তার নাম দিয়েছেন ‘সাত-সাথ’। তিনি বলেন, এই সাতটি পরামর্শে আপনাদের সঙ্গে চাই। তার মধ্যে রয়েছে বাড়ির প্রবীণ সদস্যদের প্রতি বিশেষ নজর দেওয়া, নিজেদের স্বাস্থ্যের প্রতি খেয়াল রাখা, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, চিকিৎসক-নার্স-স্বাস্থ্যকর্মীদের সম্মান করার মতো আহ্বান।

সিবিএন /১৫ এপ্রিল/ইমাম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •