সিবিএন ডেস্ক:
চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)-এ নতুন ১০৪টি নমুনা পরীক্ষায় আরও ২ জনকে করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে নগরের সড়াইপাড়ার এক নারী দুপুরেই আইশোলসনে থাকা অবস্থায় মারা গেছেন।

সোমবার (১২ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির।

তিনি বলেন, সকালে ৫০ বছর বয়সী এক নারীকে শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুপুরে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। কিছুক্ষণ আগে বিআইটিআইডি থেকে আসা রিপোর্টে তার করোনা পজেটিভ পাওয়া গেছে। এর আগে রাত ৩টায় পটিয়া উপজেলার হাইদগাঁও ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের এক শিশু আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় মারা গেছে। এ নিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় মারা গেছেন তিনজন।

এক দিনেই আইসোলেশনে তিন মৃত্যু!

চট্টগ্রাম বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. হাসান শাহরিয়ার কবির জাগো নিউজকে বলেন, চট্টগ্রামে মূলত আজ আইসোলেশনে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে একজন শিশু, একজন পুরুষ ও একজন নারী। এদের মধ্যে পটিয়ার বাক প্রতিবন্ধী শিশুটি গতকাল করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়। পরে রাতে হাসপাতালে আনা হলে, রাত তিনটায় তার মৃত্যু হয়। এছাড়া আজ সকালে এক নারীকে শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। দুপুরে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। রাতে তার রিপোর্ট করোনা পজেটিভ এসেছে। এছাড়া আরো একজন রোগীর মৃত্যু হয়েছে আইসোলেশনে। তবে আজ তার রিপোর্ট আসেনি। কাল রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি জাগো নিউজকে বলেন, বিআইটিআইডিতে সোমবার ১০৪ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এরমধ্যে দুই জনের রিপোর্ট পজেটিভ এসেছে। আক্রান্তদের একজন নারী ও একজন পুুরুষ। ৫০ বছর বয়সী নারী নগরের পাহাড়তলী থানার সড়াইপাড়া এলাকার বাসিন্দা। অপরজন কাট্টলী এলাকার ৫৭ বছর বয়সী পুরুষ।

এর আগে ১৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হলে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া ও পটিয়ায় দু’টি গ্রাম, জেলার ৩০টি বাড়ি ও একটি ব্যাংক লকডাউন করা হয়। এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন প্রায় সাড়ে ৪ হাজার মানুষ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •