গত শনিবার ১১ এপ্রিল কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত স্থানীয় অনলাইন পত্রিকায় কক্সবাজার নিউজ ডটকমে করোনা পরিস্থিতিতে অভিনব এক ব্ল্যাকমেইলারের তৎপরতা শিরোনামে সংবাদটি আমি নিম্ন সাক্ষরকারীর দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদটির একাংশে বেকার তরুণ মোঃ  আল আরাফাত প্রতারক চক্রের সদস্য বলে উল্লেখ করে যেভাবে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সবই মিথ্যা।

সংবাদে আমাকে ব্ল্যাকমেইলিংকারি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। সত্য গোপন করে এবং যথার্থতা যাচাই না করে আমার সম্পর্কে যে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে তা আমাকে দেশিয়ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করেছে এবং এর মাধ্যমে আমার সম্মানহানি করা হয়েছে। আমাকে কেন ব্ল্যাকমেইলার বলে সংবাদ প্রকাশ করা হলো? আমি মনে করছি ব্ল্যাকমেইলার শব্দের অপব্যবহার করে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করা হয়েছে। কোনো ব্যক্তি দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগ পর্যন্ত কাউকে ব্ল্যাকমেইলার বলার কোনো সুযোগ নেই এবং যখন অামার নামে কোনো প্রমান নেই, তখন কীভাবে একজনকে ব্ল্যাকমেইলার বলা যায়? ভিত্তিহীন কিছু তথ্য নিয়ে আমাকে, আমার পরিবারকে এবং আমাকে সামাজিকভাবে মানহানি করা হয়েছে।মিথ্যা সংক্রান্ত যে বিষয়গুলো নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে এবং যারা এই তথ্য যোগাড় এবং সরবরাহ করেছে, এই চক্রই আমাকে এবং আমার পরিবারকে বিপদে ফেলার জন্য ষড়যন্ত্র করে ওই সংবাদ সাজিয়েছে।
সুতরাং সংবাদে প্রকাশিত তথ্যের সাথে আমার নূন্যতম সম্পর্ক নেই।
অতএব, প্রকাশিত সংবাদে এক ধরণের মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রনোদিত । আমাকে প্রতিহিংসা মুলক ভাবে একটি প্রভাবশালী মহল আমার বিরোদ্ধে ভূয়া তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করতে এই মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করেছে।
সুতরাং আমার ব্যাপারে যেনো কেউ বিভ্রান্ত না হন সে অনুরোধ রইলো।

প্রতিবাদকারী

মোঃ আল আরাফাত

পিতাঃ- মৃত ছৈয়দুল আলম
সাং- কুতুবদিয়া পাড়া ০১ নং ওয়ার্ড পৌরসভা কক্সবাজার

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •