মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

বাংলাদেশ বাংকের সার্কুলারের নির্দেশ এবং করোনা ভাইরাস জনিত লকডাউন (Lockdown) অমান্য করে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড কক্সবাজার শাখা খোলা রাখা হয়েছে। কক্সবাজার শহরের প্রধান সড়কের শফিক সেন্টারে অবস্থিত প্রাইম ব্যাংকের এই শাখাটিতে রোববার ১২ এপ্রিল করোনা ভাইরাস জনিত সরকারের সমস্ত নির্দেশনাকে উপেক্ষা করে শাখাটি খোলা রেখে স্বাভাবিক নিয়মে লেনদেন করা হয়েছে।

অথচ শনিবার ১১ এপ্রিল বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব সাইট সুপারভিশন শাখার উপমহাব্যাবস্থাপক মোহাম্মদ আমিনুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত ক-১৯(১) নম্বর সার্কুলারে প্রশাসন কর্তৃক লকডাউন (Lockdown) ঘোষিত এলাকায় সরকারী ৬ টি ব্যাংকের শাখা ব্যতীত অন্য কোন ব্যাংকের শাখা কোন অবস্থাতেই খোলা রাখা যাবেনা বলে সুস্পষ্ট নির্দেশনা দেওয়া আছে।

এ নির্দেশনায় যেসব ব্যাংক সীমিত আকারে জুরুরি লেনদেন করার জন্য খোলা রাখতে বলা হয়েছে,সেগুলো হলো- সোনালী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকে।

করোনা ভাইরাস জনিত লকডাউন (Lockdown) এলাকায় জনসমাগম ঘটার আশংকায় অন্যান্য ব্যাংকের শাখা সমুহ অধিকতর সতর্কতা হিসাবে সম্পূর্ণ বন্ধ রাখতে সার্কুলারে বলা হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশ ও লকডাউন (Lockdown) নীতি অমান্য করে প্রাইম ব্যাংকের কক্সবাজার শাখা রোববার খোলা রাখা হয়েছে।

খোলা রাখার বিষয়ে প্রাইম ব্যাংক কক্সবাজার শাখার ব্যাবস্থাপক মোহাম্মদ ইকবাল জানান, তাদের হেড অফিস থেকে তাঁর শাখাটি খোলা রাখতে বলায়, শাখাটি খোলা রাখা হয়েছে। আপনারা বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণাধীন ব্যাংক নন, সিবিএন এর এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সেটা প্রাইম ব্যাংকের হেড অফিসের বিষয়, আমার বিষয় নয়। আমরা হেড অফিসের আদেশ মানতে সবসময় বাধ্য। পরে হেড অফিস থেকে এ বিষয়ে বিস্তারিত জেনে দেবেন বলে জানালেও, তিনি তা আর সিবিএন-কে জানাননি।

একই বিষয়ে প্রাইম ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজার হাসান কামাল জানান, সারাদেশে প্রাইম ব্যাংকের ৪৫ টি শাখা করোনা ভাইরাস জনিত সংকটে খোলা রাখতে বলা হয়েছে, তারমধ্যে কক্সবাজার শাখাও রয়েছে, তাই আমরা কক্সবাজার শাখাটি খোলা রেখেছি। খোলা রাখায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশ ও লকডাউন (Lockdown) এলাকার নিয়ম ভঙ্গ হলো কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, গ্রাহকদের সেবা দেওয়ার জন্য আমরা শাখা খোলা রেখেছি বলে তিনি প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান। তিনি বলেন, শাখা খোলা রাখার ব্যাপারটা কোন সংবাদ পরিবেশনের বিষয় নয়।

এদিকে, কক্সবাজার শহরে বাংলাদেশ বাংকের সার্কুলার নামেনে এবং করোনা ভাইরাস জনিত লকডাউন (Lockdown) অমান্য করে প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড কক্সবাজার শাখা খোলা রাখায় কক্সবাজারের অন্যান্য বেসরকারি ব্যাংক গুলোর কর্মকর্তারা তাদের গ্রাহকদের পীড়াপীড়িতে তাঁরা চরম বিভ্রতকর অবস্থায় আছেন বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ব্যাংকার সিবিএন এর কাছে তাঁদের উষ্মা প্রকাশ করেছেন। ব্যাংকারেরা বলেন, গ্রাহকদের যুক্তি হলো, প্রাইম ব্যাংকের শাখা খোলা রাখা গেলে, অন্যান্য বেসরকারি ব্যাংকের শাখা খোলা রাখা যাবেনা কেন।

এ বিষয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা’র কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সার্কুলার অনুসারে লকডাউন
(Lockdown) এলাকায় কোন বেসরকারি ব্যাংক খোলা রাখার কোন সুযোগ নেই। কিন্তু প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড তাদের শাখা কিভাবে খোলা রাখল, তা তাদের হেড অফিস থেকেই জানতে হবে বলে তিনি জানান।

প্রসঙ্গত, কক্সবাজারের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ কামাল হোসেন গত ৮ এপ্রিল ৪৫ নম্বর স্মারকমূলে এক গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে অনির্দিষ্টকালের জন্য পুরো কক্সবাজার জেলাকে লকডাউন (Lockdown) ঘোষনা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •