জে. জাহেদ , চট্টগ্রাম :

করোনা ভাইরাস কোভিড-১৯ যা শ্বাসনালীতে বাসা তৈরি করে আক্রমণ করে। এই ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ধারাবাহিক ভাবে কুতুবদিয়া থানা পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে গ্রামে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছেন ।

কথা দিয়েছিলেন ওসি মো. দিদারুল ফেরদৌস করোনা পরিস্থিতি যতদিন নিয়ন্ত্রণে আসবে না, ততদিন হতদরিদ্র কর্মহীন ঘরবন্দি মানুষের বাড়িতে বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেবেন। ধারাবাহিকতায় (১১ এপ্রিল) উত্তর ধুরং কায়ছার পাড়া এলাকার ৫০টি পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করে থানা পুলিশ।

কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপারের দিকনির্দেশনায় কুতুবদিয়া থানা ওসি’র নেতৃত্বে অসহায় দিনমজুর শ্রেণির মানুষের ঘরে ঘরে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এসব খাদ্যসামগ্রী (চাল, ডাল, আটা, আলু, পেয়াজ, সাবান ও তেলসহ) তুলে দিচ্ছন। এ সময় কুতুবদিয়া থানার সকল অফিসার ও পুলিশ সদস্য ও স্থানীয় সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ওসি মো. দিদারুল ফেরদৌস বলেন, এই কার্যক্রমই আমাদের শেষ না, ধারাবাহিক ভাবে এই কার্যক্রম চলতে থাকবে। আপনারা বাড়িতে থাকুন, সরকারের নির্দেশ পালন করুন। খাবার শেষ হয়ে গেলে আবারো আমরা আপনাদের কে খাবার দিয়ে যাবো। আমরা জনসমাগম করে ত্রাণ বিতরণ করছি না। অসহায় মানুষের দ্বারে গিয়ে তাদের হাতে ত্রাণ তুলে দিচ্ছি।

তথ্যমতে, এর আগে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও কুতুবদিয়া থানা পুলিশের উদ্যোগে উপজেলার ধুরং বাজারের আশপাশে, লেমশিখালি, উত্তরধুরং আকবর বলী ঘাট, হামজাখালী, বিদ্যুৎ মার্কেট, জেলে পাড়া, হিন্দুপাড়া, মলমচর, বাজার মোড়, বড়ঘোপ মগডেইল-আলী আকবর ডেইল, মাহিন্দ্রা হিউমেন হুইলার গাড়ি চালক হেলপার, জীপ গাড়ির ড্রাইভার হেলপার, আত্মসমর্পনকারী ১৪ জলদস্যু পরিবারকে দেড় হাজারেরও অধিক পরিবারকে ত্রাণ বিতরণ করেন।

শুরুতেই ওসির উদ্যোগে উপজেলা গেইট, হাসপাতাল গেইট ও কলেজ গেইটে জনসচেতনতা বাড়াতে বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষকে জীবাণুনাশক স্প্রে ও মাস্ক বিতরণ করেন। পাশাপাশি সতর্কবার্তা লিফলেট হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের নজরদারী, হাটবাজার নিয়ন্ত্রণ, দোকানে জনসমাগম দূরত্ব ও শৃংখলা বজায় রাখতে আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
এছাড়াও মানবিকতায় এগিয়ে থাকা কক্সবাজার জেলার কুতুবদিয়া থানার ওসি’র দুই মাসের বেতন ও সংশ্লিষ্ট থানায় কর্মরত পুলিশ সদস্যদের মাসিক বেতনের তিন দিনের সমূদয় অর্থ এবং স্থানীয় স্বচ্চল ব্যক্তিদের অনুদানে ফান্ডগঠন করে এলাকার রিক্সা শ্রমিক, টেম্পু শ্রমিকদের ত্রাণ দেয়াও অব্যাহত রাখেন।

এমনকি দ্বীপের কেউ আর্থিক সংকট কিংবা অনাহারে থাকলে পুলিশ হট লাইন ০১৮৪৩-৩৩৩১৪৪, ০১৭৭৭-৮১০০৪৬ ফোন নাম্বারে কল করলে পুলিশ খাদ্য পৌঁছে দিচ্ছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •