সংবাদদাতা:
কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউপির ৮ নং ওয়ার্ডের খরুলিয়া চেয়ারম্যান পাড়ার মৃত আমির বকসুর ছেলে মৃত নুর আহমদের বাড়িটি গত ৪ এপ্রিল হঠাৎ কালবৈশাখী ঝড়তুফানে ভেঙে গিয়ে তাঁর সন্তানরা খোলা আকাশের নীচে বসবাস করে আসছিল। তাদের গৃহহীন বসবাসের অবস্থা দেখে মানবতায় এগিয়ে আসা এলাকার বিত্তবান ও মেম্বার, চেয়ারম্যানের আর্থিক সহযোগিতায় মৃত নুর আহম্মদের সন্তানরা যথাক্রমে সৌদি প্রবাসী সব্বির আহাম্মদ প্রকাশ সকির আহাম্মদ, মৃত কবির আহম্মদের পরিবার, এছাড়াও দরিদ্র অসহায় দিনমজুর বশির আহাম্মদ, আলী আহম্মদ ও অছিউর রহমানের পরিবার তাদের বাপ দাদার আমলের দীর্ঘ প্রায় শত বছরের পুরাতন বসতবাড়িটি সংস্কার করা শুরু করলেই গত ১০ এপ্রিল দিবাগত রাতে প্রতিবেশী মৃত মোহাম্মদ খলিলের পুত্ররা যথাক্রমে সাবেক মেম্বার আব্দুল হক খলিফার নেতৃত্বে, সয়েদুল হক, আজিজুল হক, আব্দুল্লাহ আল নোমান, আবছার সাথে অনেক মহিলা সহ আরো অজ্ঞাত একদল সন্ত্রাসী বাহিনী দা, কিরিছ, লোহার রড, লাঠিসোটা সহ অনেক দেশীয় অস্ত্র হাতে হামলা চালিয়ে তাদের শরীরে আঘাত করে বাড়িটির অনেক অংশ ভেঙে দিয়ে উচ্ছেদের চেষ্টা ও অরো মামলা হামলা করার হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী আহত বশির আহাম্মদ,সৌদি প্রবাসী সব্বির আহাম্মদ প্রকাশ সকির আহাম্মদ, আলী আহম্মদ, অছিউর রহমান, মৃত কবির আহম্মদের পরিবারের লোকজন।

ঘটনা স্হল পরিদর্শনে সরেজমিনে গিলে এলাকাবাসী অনেকে জানান, উক্ত ঘটনায় আমরা এগিয়ে এসে হামলাকারীদের দাওয়া করে অসহায় গৃহহীন পরিবারগুলোর সদস্যদের উদ্ধার করি পরে আহতদের প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্হা করি। আমরা হামকারী অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি কামনা করছি।
স্হানীয় ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ জানান, আমি এ বিষয়ে জানি ও আমরা এলাকার সমাজ সেবকদের নিয়ে ঘটনাটি সমাধানের চেষ্টা চালিয়েছিলাম কিন্তু এক পক্ষেও মানতে নারাজ। তারা উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। আমাকে বিচার শালিস বৈঠকে তারা অবগত করলে আমি ঘটনাটি সমাধানের আপ্রাণ চেষ্টা করবো।

এদিকে কক্সবাজার থানার এস আই মোঃ আলমগীর তালুকদার মোবাইল ফোনে জানান, আমি ঘটনাটি সরেজমিনে গিয়ে তদন্ত করেছি, তাদের উভয়ের আদালতে জায়গা সংক্রান্ত মামলা রয়েছে এই করোনাকালীন দূর্যোগের মুহুর্তে যাতে আর কোনো ধরনের আইনশৃঙ্খলার অবনতি না ঘটে আমি কক্সবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাহান কবির স্যারের নির্দেশনায় দায়িত্ব পালন করছি। এমতাবস্থায় ভোক্তভোগী পরিবার গুলে এই মহামারির দূর্যোগ করোনা ভাইরাসের মুহুর্তে বসতবাড়িটি সংস্কার করে যাতে নিজগৃহে বাঁচতে পারে প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্টদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •