মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

টেকনাফে গত ৩ এপ্রিল দিবাগত রাত্রে লকডাউন করা সব স্থাপনা করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক নাহওয়া পর্যন্ত লকডাউন থাকবে।

র‍্যাব-১ কর্মরত টেকনাফের আক্কাস উদ্দিনের টেস্ট রিপোর্টে করোনা ভাইরাস জীবাণু ধরা না পড়ায় গত ৩ এপ্রিল দিবাগত রাত্রে টেকনাফে যেসব দোকান, বাড়ি ঘর, ডায়াগনস্টিক ল্যাব লকডাউন করা হয়েছিলো, সে গুলো এখন খুলে দেওয়া হবে কিনা, সিবিএন এর এরকম প্রশ্নের জবাবে কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সদস্য সচিব ডা. মাহবুবুর রহমান সিবিএন-কে একথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে র‍্যাব-১ কর্মরত টেকনাফের আক্কাস উদ্দিনের শরীরে করোনা ভাইরাস জীবাণু আলামত পাওয়া যায়। তাই বিন্দু পরিমাণ সন্দেহ রেখে আমরা কোন কাজ করতে চায়না। বিষয়টা সন্দেহজনক, এজন্য গত ৩ এপ্রিল দিবাগত রাত্রে টেকনাফে যেসব দোকান, বাড়ি ঘর, ডায়াগনস্টিক ল্যাব লকডাউন করা হয়েছিলো, সে গুলো লকডাউন থাকবে।

র‍্যাব সদস্য মোঃ আক্কাস উদ্দিনের বাড়ি টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের দক্ষিণ নয়াপাড়ায় বিজিবি ক্যাম্পের পাশে।

প্রসঙ্গত, টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত উপজেলা কমিটির আহবায়ক মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম তাঁর অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে ৩ এপ্রিল দিবাগত রাত ১ টার দিকে দেওয়া একটি পোস্ট থেকে র‍্যাব সদস্য মোঃ আক্কাস উদ্দিনের শরীরে করোনা ভাইরাস জীবাণুর আলামত পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়। পোস্টে মোঃ আক্কাস উদ্দিন টেকনাফ পৌরসভার পুরাতন পল্লান পাড়ায় শ্বশুর বাড়ীতে এসে গত ২০ মার্চ হতে ২৬ মার্চ পর্যন্ত থেকেছে। বেড়াতে এসে আক্কাস যেসব এলাকায় থেকেছে, এসবের মধ্যে তার ও তার পরিবারের সংস্পর্শে আাসা টেকনাফের পৌরসভার ৬টি বাড়ি, ৮ টি দোকান, কেয়ারল্যাব নামক ডায়াগনস্টিক সেন্টার এবং শাহপরীর দ্বীপে ১ টি বাড়ি টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন ৩ এপ্রিল লকডাউন করে দেন বলে পোস্টে উল্লেখ করা হয়। লকডাউন করার সময় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত উপজেলা কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. টিটু শীল, কমিটির সদস্য ও টেকনাফ মডেল থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ফেসবুক পেইজে দেওয়া এ পোস্ট এবং লকডাউন এর উপর ভিত্তি করে র‍্যাব সদস্য মোঃ আক্কাস উদ্দিনের শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গেছে মর্মে উল্লেখ করে গণমাধ্যমে সংবাদ পরিবেশন করা হয়।

পরদিন ৪ এপ্রিল আইইডিসিআর এর প্রদত্ত টেস্ট রিপোর্টে র‍্যাব সদস্য মোঃ আক্কাস উদ্দিনের শরীরে কোন করোনা ভাইরাস জীবাণুর অস্থিত্ব পাওয়া যায়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •