এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া
কক্সবাজার জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের দ্রুত পদক্ষপে চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মাষ্টার হুমায়ুন কবিরের পরিবার পাচ্ছে নতুন ঠিকানা।

পাশে দাঁড়ালেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলম।

শনিবার রাতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ফেসবুক লাইভটি দেখে পরদিন রবিবার সকালে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন এমপি জাফর আলম।

সঙ্গে ছিলেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান, চকরিয়া থানার ওসি মো.হাবিবুর রহমান, হারবাং ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম।

রবিবার ঘটনাস্থল পরির্দশন শেষে এমপি আলহাজ জাফর আলম ৫ এপ্রিল তাঁর ফেসবুক ফেইজে একটি পোস্ট দিয়েছেন।

এতে এমপি জাফর আলম লিখেছেন, বঙ্গবন্ধুর স্নেহধন্য বীর মুক্তিযোদ্ধা (সনদ পায়নি) মাষ্টার হুমায়ুন কবিরের মেয়ে নিগার খানম ঝুমা তাদের পারিবারিক অসহায়ত্বের কথা জানিয়ে ফেসবুকে একটি ভিডিও পোষ্ট করেন।

বিষয়টি দেখার পর আমি রবিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে সাথে নিয়ে তাদের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে তাদের যাবতীয় সমস্যা শুনে জানতে পারলাম যে তাদের বহু পারিবারিক সম্পত্তি কিছু অসাধু মহল দখল করে রেখেছে।

যার ফলে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার সদস্যরা ভাড়া বাড়িতে থাকে শুনে আমি তাৎক্ষণিক ভাবে তাদের বসবাসের জন্যে আমার ব্যক্তিগত তহবিলের অর্থায়নে একটি সেমিপাকা টিনসেট বাড়ি নির্মানের জন্য ইট পাঠিয়েছি এবং ৬ এপ্রিল থেকে নির্মাণ কাজ শুরু করার বন্দোবস্ত করে দিয়েছি।

এমপি জাফর আলম তাঁর ফেসবুক ফেইজে আরও লিখেছেন, একই সাথে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের বেদখলকৃত সম্পদ উদ্ধারে আমারপক্ষ থেকে পূর্ণ সহযোগীতার আশ্বাস প্রদান করি। পরিবার সদস্যরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে দেখা করতে চান। সেই বিষয়েও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দফতরের সাথে যোগাযোগ করব বলে তাদেরকে জানাই। বীর মুক্তিযোদ্ধার অধিকার আদায়ের এই যুদ্ধে আমি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সাথে আছি। ইনশাআল্লাহ সত্যের জয় হবে।

এদিকে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে তাৎক্ষনিক একটি নতুন বসতঘর নির্মাণ এবং সম্পদ উদ্ধারে সহযোগীতা দিয়ে সর্বশ্রেণীর মানুষের মাঝে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন চকরিয়া-পেকুয়ার এমপি জাফর আলম। এ ঘটনার পর থেকে নির্বাচনী এলাকা চকরিয়া-পেকুয়াজুড়ে চলছে এমপির প্রশংসা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •