প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে জনসমাগম ও চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। এতে কর্মহীন হয়ে পড়েছে কর্মজীবী মানুষ। কাজ হারিয়ে চরম বিপাকে পড়া শহরের বিভিন্ন অলি-গলিতে দিনমজুর, শ্রমজীবীসহ নিম্ন আয়ের মানুষজনের বাড়িতে রাতের আঁধারে এক বেলার আহার পৌছে দিলো এ্যাকশন এগেইনস্ট হাঙ্গার (এসিএফ)।

কক্সবাজারে করোনায় গৃহবন্দি হয়ে পড়া কর্মহীন শ্রমজীবি মানুষদের মাঝে করোনা বিপর্যয়ের সময়কালীন প্রতিদিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে এক বেলার আহার পৌঁছে দেওয়ার কর্মসূচীর সূচনা করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জনাব শাহজাহান আলী। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাহমদুল্লাহ মারুফ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নজিবুল ইসলাম, এসিএফ চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিভাগীয় পরিচালক মাহাদী মোহাম্মদ,ডেপুটি ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর ইফতেখার আহমেদ খান,ফিন্যান্স কোঅর্ডিনেটর তাপস বড়ুয়া, এসিএফ কর্মকর্তা এ্যানি চৌং, মোতাহের হোসেন।

এসময় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাহজাহান আলী বলেন,করোনা ভাইরাসের এমন বিপর্যয় প্রতিরোধে সকলের অংশগ্রহন দরকার। এসিএফের উদোগে জেলাব্যাপী হ্যান্ড ওয়াশ্ পয়েন্ট,ডিস-ইনফেকশন একটিভিট ও এক বেলা আহার কর্মসূচী সহ COVID-19 মোকাবেলায় সরকারের পাশাপাশি এসিএফের এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়।

এসিএফ ডিভিশনাল ডিরেক্টর মাহাদী মোহাম্মদ বলেন, বিশ্বব্যাপী ক্ষুধার্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর লক্ষ্যেই একশন এগেইনস্ট হাঙ্গারের যাত্রা শুরু হয়েছিলো। সেই থেকে এখনো বাংলাদেশ সহ বিশ্বব্যাপী ক্ষুধার্ত মানুষের মুখে খাবার তুলে দেওয়ার প্রয়াস ও লক্ষ্যে আমাদের পথচলা। করোনা বিপর্যয়ে বিশ্বব্যাপী সংকটের দিনে কর্মহীন শ্রমজীবি মানুষের হাতে অন্তত এক বেলার আহার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার এই প্রয়াস অব্যহত রাখতে প্রাণপন চেষ্টার অঙ্গীকার করেন ও সকলকে এগিয়ে আসার আহব্বান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •