খলিল চৌধুরী, সৌদি আরবঃ

মহামারি করোনার প্রাদুর্ভাবে সৌদি আরবসহ মধ্যপ্রাচ্যের আরব দেশগুলোর সব মসজিদে নামাজ স্থগিত রয়েছে। পবিত্র মক্কা নগরী মসজিদে হারাম ও মদিনার মসজিদে নববিতে স্বল্প পরিসরে চালু রয়েছে নামাজের জামাআত। পবিত্র এ দুই মসজিদে ১৫ মিনিটে জুমআ আদায়ের অনুমোদন রয়েছে।

সৌদি আরবের হারামাইন কর্তৃপক্ষ সর্বোচ্চ নিরাপত্তার আলোকে সংক্ষিপ্ত পরিসরে নামাজ সম্পন্ন করার নির্দেশনা জারি করেছেন। চলতি সপ্তাহে মক্কার মসজিদে হারামের ইমামদের নামাজ পড়ানোয় কিছু সাময়িক পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ পরিবর্তনের ফলে মসজিদে নববির সম্মানিত ইমামরাও নিজ নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে অবস্থানের সুযোগ লাভ করেছেন।
হারামাইন কর্তৃপক্ষ শুক্রবার (৩ এপ্রিল/১০ শাবান) জুমআর নামাজ পরিচালনায় মক্কা-মদিনার দুই পবিত্র মসজিদের ইমাম নির্ধারণ করেছে। মক্কার কাবা শরিফ তথা মসজিদে হারামে নামাজ পড়াবেন শায়খ ড. বন্দর বিন বালিলাহ। আর মদিনা মুনাওয়ারার মসজিদে নববিতে নামাজ পড়াবেন শায়খ ড. আব্দুল বারি আওয়াদ বিন আলি আল-থুবাইতি। হারামাইন কর্তৃপক্ষ জুমআর নামাজের জন্য এ দুই ইমামের নাম ঘোষণা করেছেন।

মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববিতে স্বল্প পরিসরে উপস্থিত পরিচ্ছন্নতা কর্মী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ উপস্থিত কর্মকর্তা কর্মচরীদের দিয়ে নামাজ পরিচালিত হবে।

উল্লেখ্য, পুরো সৌদি আরবে করোনার প্রকোপ বাড়লেও তুলনামূলক মক্কা ও মদিনা ছিল অনেকটা নিয়ন্ত্রণে। এবার মক্কা-মদিনায়ও বাড়ছে করোনায় আক্রান্তদের সংখ্যা।
গত মার্চ মাসের ২ তারিখ থেকে শুরু করে চলতি মাসের ২ তারিখ পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে মোট ১৮৮৫ জন,
মারা গেছে মদিনা ১৩জন বাকি ৮জন অন্যান্য শহরে সহ মোট ২১জন, সুস্থ হয়েছে ৩২৮ জন,

আক্রান্তের মধ্যে :
রাজধানী রিয়াদে ৫৮৭ জন, মক্কায় ৩৬৩ জন, ইস্টান রিজিওনে ৩৫২ জন, জেদ্দায় ২৫৬ জন, মদিনায় ১৯৯ জন, আসিরে ৪২ জন, তায়েফে ২৯ জন, নাজরানে ১৩ জন, আল বাহাতে ১৩ জন, জিজানে ১০ জন, তাবুকে ৮ জন, আল কাসিমে ৭ জন, আরারে ২ জন, দাওয়াদমিতে ১ জন, কুনফুদাতে ১ জন, আল হেনাকিয়াতে ১ জন।

তথ্যসূত্র : মিনিস্ট্রি অফ হেলথ (সৌদি আরব)

এখন পর্যন্ত ৪ জন বাংলাদেশি করোনা ভাইরাসে মারা যাওয়ার সংবাদ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদ ও বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল জেদ্দা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •