সোয়েব সাঈদ, রামু:
রামু উপজেলার কাউয়ারখোপ, কচ্ছপিয়া, গর্জনিয়া ও ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নে করোনা পরিস্থিতির কারণে কর্মহীন ও হতদরিদ্র ৫ শতাধিক পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার (২ এপ্রিল) সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এসব ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় বাড়ি বাড়ি এবং কর্মহীন মানুষের কাছে গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা।
এসময় কাউয়ারখোপ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, কচ্ছপিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাঈল মো. নোমান, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন, জন স্বাস্থ্য প্রকৌশলী ক্য ছাই মং চাক, উপ-সহকারি প্রকৌশলী আলা উদ্দিন খান, এনএসআই প্রতিনিধি আবু হানিফ সহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে গত ১ এপ্রিল রামু উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জোয়ারিয়ানালা, রশিদনগর, রাজারকুল, ৩১ মার্চ খুনিয়াপালং, দক্ষিণ মিঠাছড়ি এবং ৩০ মার্চ ঈদগড়, রশিদনগর, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় ১৪০০ কর্মহীন ও হতদরিদ্র পরিবারকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। এনিয়ে গত ৪দিনে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রায় ২ হাজার পরিবারে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হলো।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রণয় চাকমা জানান, করোনা পরিস্থিতিতে যানবাহন চালক-শ্রমিক, অতি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ি, দিনমজুর সহ অনেক মানুষ কাজ করতে না পেরে দিনাতিপাত করছে। এমন পরিবারগুলোকে খুজে বের করে চাল-তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি করোনার ভয়াবহতা থেকে রক্ষায় সবাইকে বাড়িতে অবস্থান করার আহবান জানান।
অপরদিকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে ওইসব এলাকায়গুলোতে সচেতনতামূলক প্রচারণা, দোকান-পাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধে অভিযান চালান। বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় উখিয়ারঘোনা স্টেশনে দোকান খোলা রেখে জমায়েত করার অভিযোগে চা দোকানদার নুরুল হাকিমকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন ইউএনও প্রণয় চাকমা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •