চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রাম কর্ণফুলী উপজেলার বড়উঠান এলাকায় ভূমিমন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ নিয়ে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতা ও এক ইউপি সদস্যের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িঘর ভাঙচুর ও দুপক্ষের মধ্যে অন্তত পাঁচজন আহত বলে খবর পাওয়া যায়।

পহেলা এপ্রিল (বুধবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কর্ণফুলী উপজেলার ২নং বড়উঠান ইউনিয়নের ৯নং ওর্য়াডের ডাকপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

দু’পক্ষের আহতরা হলেন-উপজেলা শিক্ষা উপ-পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল আবেদীন খান জিকু (৩৮), সদ্য ঘোষিত চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক সেলিম উদ্দিন (২৬), মো. সাইফুদ্দিন (৪৬), রশিদা বেগম (৪২) ও মোহাম্মদ শাহ জাহান (৩৬)।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, করোনা মোকাবেলায় কর্ণফুলী উপজেলার হতদরিদ্র মানুষের জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও ভূমিমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণের প্রস্তুতি নিচ্ছে। ৩১ মার্চ মঙ্গলবার বিকেলে মুঠোফোনে এসব ত্রাণ বিতরণ নিয়ে ডাকপাড়া গ্রামের ছাত্রলীগ নেতা সেলিম উদ্দিনের সঙ্গে স্থানীয় ইউপি সদস্য সাজ্জাদ খাঁন সুমনের কথা হয়। এক পর্যায়ে ছাত্রলীগ নেতা মন্ত্রীর দেওয়া ত্রাণ বিতরণের সময় নিজ এলাকায় নিজেকে সম্পৃক্ত করার জন্য সুমনকে জোর কাটান। এতে ইউপি সদস্য ক্ষিপ্ত হন এবং মোবাইলে দুজনের কথা কাটাকাটি হয়।

এই ঘটনায় ঐ দিন রাত ১১টায় ইউপি সদস্য ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা লাঠিসোটা নিয়ে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে হামলা করে ভাংচুর চালায়। এসময় ছাত্রলীগ নেতা পাশের গ্রামে পালিয়ে গেলেও তাকে ধরে এনে পরিবারের ওপরও হামলা চালানো হয় দাবি করেন। কিন্তু মেম্বার পক্ষের লোকজন দাবি করছেন, সেলিমের নেতৃত্বে লোকজন এসে মেম্বার পক্ষের কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের শিক্ষা উপ-পাঠাগার বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল আবেদীন জিকুর উপর হামলা করে। খবর পেয়ে সিএমপি কর্ণফুলী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ থমথমে ভাব বিরাজ করছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, দু’পক্ষেই উপজেলা চেয়ারম্যান ফারুক চৌধুরীর অনুসারী। সুতরাং উভয় পক্ষকে ঘটনার সমাধানে চেয়ারম্যানের বাসায় ডেকে বৈঠকে বসার কার্যক্রম চলছে বলে এলাকাবাসী জানায়।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে সেলিম উদ্দিন জানান, ‘এলাকায় মন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ বণ্টনের বিষয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের কাছে আমি জানতে চাইলে তিনি ক্ষিপ্ত হন। পরে আমার বাড়িতে তিনি দলবল নিয়ে হাজির হয়ে আমাকে ও আমার বাবা-মাকে মারধর করে বাড়িঘর ভাংচুর করেছে।’

বড়উঠান ইউনিয়নের ইউপি সদস্য সাজ্জাদ খাঁন সুমন বলেন, ‘ভূমিমন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ বন্টনের ব্যাপারে নাকি সেলিমকে বলতে হবে। এ নিয়ে আমার সাথে ওর কথাকাটি হয় মোবাইলে। পরে যে ঘটনা ঘটেছে তা আমি জানি না।’ ওর বাসায় কারা হামলা চালিয়ে জানতে চাইলে তিনি কিছু জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন।

বড়উঠান ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান হাজী রফিক উল্লাহ বলেন, ‘এটা আসলে একটা দুঃখজনক ঘটনা। এই ঘটনা নিয়ে আমি খুবই লজ্জিত।’

এ ব্যাপারে সিএমপি কর্ণফুলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইসমাইল হোসেন জানান, মন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ বিতরণ নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের নেতার সাথে স্থানীয় এক ইউপি মেম্বারের সাথে কথাকাটা হয়। পরে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ঢিল ছোড়াকে কেন্দ্র করে একটু হৈ চৈ হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তেমন কোন বড় ঘটনা নয়। রাতে উভয়পক্ষকে থানায় ডাকা হয়েছে। বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করা হবে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •