ইমাম খাইর, সিবিএন :
কক্সবাজার জেলার ৮ উপজেলার হতদরিদ্র ও কর্মহীন লোকদের জন্য ৩০০ মেট্রিক টন চাল ও ১২ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।
সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এর মাধ্যমে উপযুক্ত পরিবারের ঘরে ঘরে গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হবে।
৩০০ মেট্রিক টন চাল থেকে প্রতি পরিবারের জন্য ২০ কেজি করে উপজেলা পর্যায়ে বিতরণ কার্যক্রম রবিবার (২৯ মার্চ) উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন। প্রথম দিনে দেড়শ প্যাকেট চাল বিতরণ করা হয়েছে।
বরাদ্দের ১২ লক্ষ টাকায় পেঁয়াজ, ডাল, তেল ইত্যাদি শুকনো খাদ্য সামগ্রী ক্রয় করা হবে। যা ৬ হাজার পরিবার পাবে।
জরুরী ত্রাণ তৎপরতার জন্য জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে উপজেলা ভিত্তিক কমিটি গঠন করে দেয়া হয়েছে। প্রকৃত কর্মহীন, গরীব, অসহায়, হতদরিদ্ররাই তালিকাভুক্ত হবে।
এসব তথ্য জানিয়েছেন জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা (ডিআরআরও) মোহাম্মদ মাহবুব আলম।
তিনি বলেন, প্রতি পরিবারকে ২০ কেজি করে চাল বিতরণের কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিদের সমন্বয়ে তালিকার মাধ্যমে প্রকৃত হকদারদের ঘরে ঘরে চাল ও শুকনো খাবার সামগ্রী পৌঁছিয়ে দেয়া হবে।
করোনা ভাইরাসের কারণে কর্মহীন দরিদ্র মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা সরবরাহের কার্যক্রম রবিবার থেকে শহর ও উপজেলা পর্যায়ে শুরু হয়েছে।
দুপুর ১২টা থেকে প্রায় অাড়াই ঘন্টা পর্যন্ত শহরের কলাতলী, সুগন্ধা পয়েন্ট, সাগরপাড়, লাবনি পয়েন্ট, হলিডে মোড়ে খোঁজে খোঁজে রিক্সাওয়ালা, টমটম চালক, শ্রমিক, ভ্যান চালক, ভিক্ষুক, কিটকট ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের হাতে ত্রাণ তুলে দেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন।
দোকানের বারান্দা কিংবা পথেঘাটে শুয়ে থাকা ছিন্নমূল মানুষকেও শুকনো খাবার দেন।
এর আগে সদরের ঝিলংজা পূর্ব লাহার পাড়ায় ঘরেঘরে গিয়ে ২০ কেজি করে চাল পৌঁছিয়ে দেন জেলা প্রশাসক।
এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আশরাফুল অাফসার, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা (ডিআরআরও) মোহাম্মদ মাহবুব আলম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল,
জেলা প্রশাসন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ শাহরিয়ার মুক্তার, ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতানসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •