মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কক্সবাজার জেলা পুলিশের ২০ সদস্য বিশিষ্ট কুইক রেসপন্স টিম (সিআরটি) গঠন করা হয়েছে। এই মহাদুর্যোগে দ্রুত, ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নাগরিক সেবা দিতে অপেক্ষাকৃত মেধাবী, চৌকস ও প্রশিক্ষিত পুলিশ সদস্যদের নিয়ে এ টিম গঠন করা হয়েছে। এ টিম ইতিমধ্যে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করে দিয়েছে।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, কক্সবাজার পুলিশ লাইন্সে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে গঠিত কুইক রেসপন্স টিমের একাধিক মহড়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। কক্সবাজার জেলায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত জনসাধারণকে জরুরী সহায়তা প্রদান ও উদ্ধার কার্য পরিচালনার লক্ষ্যে এই টিমকে সার্বক্ষনিক স্টেনবাই রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য সেবায় অভিজ্ঞতা আছে এমন সদস্য সহ অন্যান্যদের সমন্বয়ে ২০ সদস্য বিশিষ্ট এই টিম করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে পিপিই, অন্যান্য সরঞ্জাম ও ২টি এ্যাম্বুলেন্স নিয়ে সর্বদা প্রস্তুত থাকবে। কোন পুলিশ সদস্য করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেই তাৎক্ষণিকভাবে প্রাথমিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। করোনা ভাইরাসে কোন জনসাধারণ আক্রান্ত হলে তাকে আইসোলেশন বা হাসপাতালে প্রেরণের ব্যবস্থা করবে। এছাড়াও আইসোলেশন বা হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিদের খাদ্য, ঔষধ ও অন্যান্য সহায়তা পৌঁছে দিবে। কেউ হোম কোয়ারান্টাইন না মানলে তাকে হোম কোয়ারান্টাইন নিয়ে যাওয়ার জন্য ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান এসপি এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার)। কক্সবাজার জেলা পুলিশের কর্মকর্তাদের নির্দেশনায় একজন পরিদর্শকের নেতৃত্বে এই টিম কাজ করছে। সংকটের ভয়াবহতা বৃদ্ধি পেলে টিমের ২০ সদস্য ছাড়াও আরো অতিরিক্ত ১০ জন পুলিশ সদস্যকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে টিমে যোগ দিতে প্রস্তুত করে রাখা হয়েছে। যাতে প্রয়োজন হলেই তাদের কাজে লাগানো যায়। জরুরি উদ্ধার কাজ সহ মানবিক যেকোন কাজে অংশ নিতে মানসিকভাবে তৈরী করা হয়েছে এই কুইক রেসপন্স টিমকে।

এসপি এবিএম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার) বলেন, মাতা, পিতা, সন্তান, স্ত্রী, স্বজন, বাড়িঘরের কথা মাথায় না রেখে সম্পূর্ণ মানবিক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে এই টিম কাজ করে যাবে ইনশাআল্লাহ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •