জাহাঙ্গীর আলম কাজল ,নাইক্ষংছড়ি:
করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে লকডাউনে নাইক্ষ্যংছড়ি সদরসহ পুরো উপজেলা অচল হয়ে পড়েছে। ঘরবন্দি সকল মানুষ। উন্নয়ন কাজ, সকল প্রকার ব্যবসাবাণিজ্য, হাটবাজার, যানবাহন ও চাষাবাদসহ সবকিছুই প্রায় বন্ধ রয়েছে।
ফলে বিপাকে পড়েছে চাষী থেকে শুরু করে পাহাড়ের বিভিন্ন প্রান্তিক শ্রমজীবী ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা। এসব মানুষ যখন পরিবার-পরিজনের খাদ্যে যোগান দিতে হিমশিমের মধ্যে পরে হতাশায় ভুগছেন। ঠিক তখনিই তাদের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন দুর্যোগ মানবিক নাইক্ষংছড়ি প্রায়স নামে একটি সংগঠন। এ সংঘঠনের আহবায়ক নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আধ্যাপক শফিউল্লাহ
করোনা এ সংকটে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার মানুষের খাদ্য সংকট নিরসনে জন্য দুর্যোগ মানবিক নাইক্ষ্যংছড়ি প্রায়স সংঘটনে তিনি নীজ তহবিল থেকে নগদ এক লাখ আর্থিক অনুদান দিয়েছেন।
এ সংঘঠনে আর্থিক অনুদান দিয়ে মানবতা সেবাই এগিয়ে আসা সেই মহৎ ব্যক্তিদের নাম:

(১) উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক শফিউল্লাহ
(২)জেলাপরিদ পরিষদ সদস্য ক্যনুওয়ান চাক,
(৩)সাবেক ইউপি চেয়ারম্যন তসলিম ইকবাল ইকবাল,
(৪)উপজেলা আ:লীগ সাধারণ সম্পাদক মো:ইমরান,
(৫)ইউপি সদস্য আরিফউল্লাহ চুট্রু,
(৬)সদর ইউপি চেয়ারম্যন নুরুল অাবছার ইমন,
(৭) ব্যবসায়ী নুরুল কাসেম
(৯) শিক্ষক আব্দুল হালিম ফারক,
(১০)মো: ছৈয়দ নুর
(১১)সাংবাতিক জাহাঙ্গীর অালম কাজল,
(১২)শিক্ষক ছৈয়দুল বাশার,
(১৩) চাকুরিজীবি, মহিবুল ইসলাম,
(১৪) ঠিকাদার নুরুল আবছার সোহেল,
(১৫) ঠিকাদার জিয়াবুল হক,
(১৬)ফায়সাল আজাদসহ আরো অনেকই

এব্যাপার দুযোগ মানবিক প্রায়স সংঘঠনের অাহবায়ক শফিউল্লাহ বলেন, করোনা ভাইরাস মোকাবিলা এবং নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার যেসব এলাকায় করোনা অাত্রুান্ত ও দারিদ্র দেখা দিয়েছে, ঐ এলাকাগুলোতে জরুরী সেবা দিতে অামি নীজ তহবিল থেকে “দুর্যোগ” মানবিক প্রায়স নামে এ সংঘঠনে এক লাখ টাকা আর্থিক অনুদান দিয়েছি।
তিনি আরো বলেন,করোনাভাইরাস মোকাবিলা করতে গিয়ে সাধারণ মানুষের কাজকর্ম না থাকে এবং কোন সমস্যা হয়, তার জন্য আমরা দুর্যোগ মানবিক প্রয়াস নামে সংঘঠন ইত্যেমধ্যে এ সিন্ধান্ত নিয়েছি।
তিনি বলেন ইত্যেমধ্যে ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে প্রশাসকের কাছে ত্রাণ সামগ্রী পাঠানো হয়েছে
এবং পার্বত্য মন্ত্রীর নির্দেশ বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা

নির্দশে বিভিন্ন দূর্গম পাহাড়ী ম্রো পল্লীর নিম্ন আয়ের মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে “দুর্যোগ” মানবিক প্রায়স সংঘঠন খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •