মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারে এ পর্যন্ত ৪৩৫ জন হোম কোয়ারান্টাইনে ছিলেন। তারমধ্যে ৯৭ জনের কোয়ারান্টাইন পিরিয়ড শেষ হওয়ায় তাদের হোম কোয়ারান্টাইন থেকে তাদের মুক্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ২৬ মার্চ পর্যন্ত কোন ব্যক্তিকে সরকারিভাবে ঘোষিত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারান্টাইনে পাঠানো হয়নি।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সদস্য সচিব ডা. মাহবুবুর রহমান সিবিএন-কে এ তথ্য দিয়েছেন। তিনি আরো জানান, করোনা ভাইরাস নিয়ে এ মহাসংকটে সরকারের উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারিভাবে সহায়তা পেতে শুক্রবার ২৭ মার্চ সকাল ১১ টায় কক্সবাজারের প্রাইভেট হাসপাতাল গুলোর প্রতিনিধিদের সাথে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভা আহবান করা হয়েছে। করোনা সংক্রান্ত নির্দেশনার পরিমিত দুরত্ব ও জমায়েতহীনতা মেনে চলেই এ সভা অনুষ্ঠিত হবে ইনশাল্লাহ।

সিভিল সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান বলেন, গত ২৪ মার্চ জনৈকা বয়স্ক মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস ধরা পড়া রোগী ব্যতীত কক্সবাজার জেলায় আর কোন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়নি। কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন করোনা ভাইরাস আক্রান্ত জনৈকা বয়স্ক মহিলার স্বাস্থ্যের অবস্থাও স্থিতিশীল রয়েছে বলে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের দায়িত্বশীল কর্মকর্তার উদ্বৃতি দিয়ে সিবিএন-কে সিভিল সার্জন ডা. মাহবুবুর রহমান জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •