মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সাদিয়া আফরিন হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছেন। গত ২৪ মার্চ কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৭০ বছর বয়স্ক এক মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) জীবাণু ধরা পড়ে। উক্ত মহিলার চিকিৎসার তত্বাবধানে ছিলেন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিনের স্বামী ও কক্সবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. ইউনুস।

ডা. ইউনুস সিবিএন-কে জানান, করোনা ভাইরাস জীবাণু সনাক্ত হওয়া ঐ মহিলাটির চিকিৎসার দায়িত্বে ছিলেন। গত ২১ মার্চ থেকে তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন। সে হিসাবে তিনি নিজে কক্সবাজার সরকারি মেডিকেল কলেজের আশেপাশের একটি ভবনের কক্ষে এখন হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছেন। অন্য দিকে, তাঁর সহধর্মিণী নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিন নাইক্ষ্যংছড়ি তাঁর সরকারি বাসভবনে হোম কোয়ারান্টাইনে রয়েছেন বলে সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। নাইক্ষ্যংছড়ির ভারভাপ্ত ইউএনও হিসাবে বান্দরবান জেলা প্রশাসনের সহকারী সচিব মাহমুদ বুধবার ২৫ মার্চ থেকে দায়িত্ব পালন করছেন বলে হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা সাদিয়া আফরিন জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা লকডাউন ঘোষনা করে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নিজেই হোম কোয়ারেন্টিনে চলে যান। তবে তারা স্বামী স্ত্রী ২ জন এখন পর্যন্ত সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছেন। হোম কোয়ারান্টাইনে থাকা কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. ইউনুস ও তাঁর সহধর্মিণী নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও সাদিয়া আফরিন সুস্থ থেকে হোম কোয়ারান্টাইন পিরিয়ড শেষ করে সুস্থ ভাবে নিজ নিজ কর্মস্থলে ফিরে আসতে সকলের দোয়া চেয়েছেন। উল্লেখ্য, ডা. মো. ইউনুসের বাড়ি চকরিয়া উপজেলার খুটাখালীতে ও তাঁর সহধর্মিণী নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও সাদিয়া আফরিনের বাড়ি রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •