তাওহীদুল ইসলাম নূরী

বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে আলোচিত নাম ” করোনা ভাইরাস “। এটি আলোচিত শুধু নয় বরং আতঙ্ক, ভয় এবং উৎকন্ঠারও। ২০১৯ সালের শেষের দিকে চীনের হুবেইর উহান শহর থেকে সৃষ্ট করোনা ভাইরাস তিন মাসের মাথায় এখন চীনের গণ্ডি পেরিয়ে পৃথিবীর ১৯২ টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। সারাবিশ্বে এ পর্যন্ত (২৪/০৩/২০২০) করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৯৪৪ জন। যার মধ্যে ঝরে গেছে প্রায় ১৭ হাজার মানুষের প্রাণ। সুস্থ হওয়ার সংখ্যা প্রায় ১ লাখ । অর্থাৎ আক্রান্তের ২৫%। সাধারণত এই ভাইরাসে অপেক্ষাকৃত বৃদ্ধরাই বেশির ভাগ মারা গেছেন। যাদের বয়স ৬০ থেকে উপরের দিকে। করোনায় নিহত হওয়া বেশি ভাগই ইতালি,চীন, স্পেন এবং ইরানের এবং । ইতালিতে করোনায় প্রাণহানির সংখ্যা প্রায় ৭ হাজার। যা,চীনের দ্বীগুণ।

গত কয়েক দিন ধরে চীনের উহান শহর থেকে মহামারীর মত ছড়িয়ে পড়া করোনার সংক্রমণ দেখা হচ্ছে আমাদের প্রাণের বাংলাদেশেও। করোনায় ২৫ মার্চ পর্যন্ত ৩৯ জন সংক্রমণের পাশাপাশি আমাদের দেশে মারাও গেছে ৫ জন। পৃথিবীর অনান্য দেশের চেয়ে আমাদের দেশে করোনায় সংক্রমিত ব্যক্তি এবং প্রাণহানির সংখ্যা কম এই তৃপ্তিতেই হয়ত ২১ মার্চ রাজধানী ঢাকার মত একএকটি ঝুঁকিপূর্ণ শহরে ঢাকা-১০ সংসদীয় আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুই প্রবাসীকে নিয়ে গাইবান্ধায় ৫০০ এর বেশি লোকের উপস্থিতিতে একটি বিয়ের আয়োজন হয়েছে, আর অতি সচেতন এবং জ্ঞানপিপাসু বলেই হয়ত হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে এক লোক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন শুনে ঐ রোগীকে দেখতে তার বাড়ীর আঙ্গীনায় দলে দলে মানুষের ভীড় জমেছিল।
এই হচ্ছে আমাদের করোনায় সচেতনতা অবলম্বন। কিন্তু,কোন ভাবেই ভুলে গেলে চলবে না করোনা অত্যন্ত সংক্রাম একটি ভাইরাস। এটি মানুষের ফুসফুসে সংক্রমণ ঘটায় এবং এবং শ্বাসতন্ত্রের মাধ্যমেই একজনের দেহ থেকে আরেক জনের দেহে ছড়ায়। আর এটি ফ্লু বা ঠাণ্ডা লাগার মত হাঁচি-কাশির মাধ্যমেই ছড়ায়। যার সংক্রমণের প্রধান লক্ষণ হলো শ্বাস নিতে কষ্ট হওয়া, জ্বর এবং কাশি। কিন্তু, এর পরিণামে এক সময় দেহের বিভিন্ন অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বিকল হয়ে যাওয়া, নিউমোনিয়া এবং মৃত্যুও হতে পারে। ২০১৯-এনসিওভি অর্থাৎ করোনা ভাইরাস যেহেতু নতুন তাই এর কোন টীকা কিংবা ভ্যাকসিন নেই, আর এমন কোন চিকিৎসাও এখন পর্যন্ত নেই যা এই রোগ ঠেকাতে পারে।

প্রশ্ন থাকে তাহলে কী করা দরকার? হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাস্থ্য সম্পর্কিত এক নির্দেশনায় বলা হয়েছে, হাত সবসময় পরিস্কার রাখতে হবে এবং বার বার সাবান দিয়ে হাত ধুঁতে হবে। হাত দিয়ে চোখ,নাক,মুখ ঘষা যাবে না। আর, অন্য মানুষের স্পর্শ সম্পূর্ণ নিষেধ করে এ নির্দেশনায় বলা হয়েছে যেন মানুষের ভীড়ের মধ্যে না যায়,এক জনের সাথে অন্য জন হাত না মিলায় এবং ভ্রমণকে সম্পূর্ণ বাদ দিতেও বলা হয়েছে। অথচ, আমরা অনেকেই জানার পরও তা মানছি না। যার পরিণাম হয়ত অবর্ণনীয় হতে পারে। যেমন, ইতালী প্রথমে করোনার বিষয়টাকে তেমন গুরুত্ব না দিয়ে আজ এক প্রকার বিপর্যস্ত। যেখানে এখন পর্যন্ত করোনায় বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মানুষের প্রাণ ঝরেছে। এমনকি এই করোনা দুর্যোগে ১ দিনে ৬৫১ জনেরও রেকর্ড সংখ্যক মৃত্যু হয়েছে ইতালীতে। তাই, বলি তৃপ্তির কিছুই নেই। পরিস্থিতি যে কোন মুহুর্তেই লাগাম ছাড়া হতে পারে। সচেতনতা অবলম্বন করেই সামনের দিকে এগুতে হবে।

বিভিন্ন ধর্মের বিশিষ্ট গবেষকরা করোনাতে সতর্কতা অবলম্বনের পাশাপাশি এই মহামারীর মত ভাইরাসটি থেকে বাঁচতে বেশি বেশি আল্লাহর দরবারে প্রার্থনা করতে বলেছেন। আবার অনেকে করোনাকে আল্লাহর গজবও মনে করেছেন। ধ্বংসস্তূপের মধ্য থেকে ইতালির প্রধানমন্ত্রীর দুই দিন আগের
“We try our best.but,we are failed. Now,without sky’s help we don’t have any way to live. ” বক্তব্যই প্রমাণ করে যে আল্লাহর সাহায্য ছাড়া করোনা থেকে বাঁচা অসম্ভব। আর, তিনি আকাশের সাহায্য বলতে এখানে আল্লাহর সাহায্যকেই বুঝিয়েছেন। তাই, আসুন প্রয়োজনীয় সতর্কতার পাশাপাশি মহান আল্লাহর দরবারে করোনা থেকে বাঁচতে বেশি বেশি প্রার্থনা করি।

একনজরে দেখে নিই করোনা থেকে পরিত্রাণ পেতে আমাদের বর্জনীয় ও করণীয়—

বর্জনীয়ঃ
* অতি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের না হওয়া।
* মানুষের ভীড়ে যাওয়া যাবে না।
* হাত মিলানো এবং কোলাকুলি থেকে বিরত থাকতে হবে।
* ভ্রমণ করা যাবে না।
* চোখ, নাক এবং মুখে হাত দেয়া যাবে না।
* একটা টিস্যু একবারের বেশি ব্যবহার করা যাবে না।

করণীয়ঃ
* বাড়িতে অবস্থান করতে হবে।
* অপরের নিকট থেকে ২ মিটার (৬ ফুট) দূরত্বে থাকতে হবে।
* বেশি বেশি সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে।
* পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে।
* লেবু,কমলা,মাল্টা এবং পেয়ারাসহ ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার বেশি বেশি খেতে হবে।
* হাঁচি দেয়ার সময় নাক ঢাকতে হবে।
* বেশি বেশি আল্লাহর সাহায্য কামনা করুন।

করোনায় যথাযথ সচেতনতা অবলম্বন করতে গিয়ে আজকের সূর্য এবং পৃথিবীর সৌন্দর্য আপনি উপভোগ করতে পারেন নি,আগামীকালও হয়ত পারবেন না। কিন্তু, মনে রাখবেন এই কয়দিনের সচেতনতায় আগামীকালের পরের দিন থেকে করোনা দুর্যোগের আগের দিনগুলোর মতই ঠিক সূর্য এবং ধরণীর সৌন্দর্য আপনি উপভোগ করবেন। তাই একটু সচেতন হোন আর রচনা করুন নিজের সুন্দর আগামী।

আল্লাহ আমাদের সকলের সহায় হোন,…

তাওহীদুল ইসলাম নূরী
আইন বিভাগ (অধ্যয়নরত),
আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম।
শাহারবিল সদর,চকরিয়া, কক্সবাজার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •