•  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  

ইমাম খাইর, সিবিএন
করোনার আতঙ্কের রাতে কক্সবাজার সদরের পিএমখালীতে অগ্নিকাণ্ডে ছাই হয়ে গেছে কাঠের তৈরি দুই তলা বিশিষ্ট বসতবাড়ি।

এতে ছমিরা খাতুন (৩০) নামের এক গৃহবধূ অগ্নিদগ্ধ হয়েছে। তাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। কমবেশি আহত হয়েছে আরো কয়েকজন।

মুহূর্তের আগুনে রক্ষা হয়নি ৫ টি পরিবারের ঘরের কোন সরঞ্জাম। এতে ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২৫ মার্চ রাত ২ টার দিকে ইউনিয়নের পূর্বগোলারপাড়া হাজী শামসুল আলমের দ্বিতল বিশিষ্ট কাঠের তৈরি বসতবাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা গেছে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছলেও ততক্ষণে সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনে অগ্নিনির্বাপক কর্মীরা।

রান্নাঘর থেকে অগ্নিকাণ্ডের সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দা।

আবার বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকেও আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা জানে আলম জনি কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন)কে এই খবর জানিয়েছেন।

তিনি জানান, বাড়িতে হাজী শামসুল আলম (৯৫), তার ছেলেদের মধ্যে এফাজ উল্লাহ (৪০), নিয়ামত উল্লাহ (৩৭), সিরাজ উল্লাহ (৪৫) ও নুরুল্লাহ (৪৮) বসবাস করে।

অগ্নিকাণ্ডে তাদের পরিবারের সব সহায় সম্বল পুড়ে গেছে।

বর্তমানে পাঁচ পরিবারের ২৫ জনের মতো সদস্য খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছে।

ক্ষতিগ্রস্ত নিয়ামত উল্লাহর অগ্নিদগ্ধ স্ত্রী ছমিরা খাতুনকে দ্রুত উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

তবে, তার সর্বশেষ অবস্থা জানা সম্ভব হয় নি।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, এলাকার চলাচলের রাস্তা ছোট হওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে যথাসময়ে সময়ে পৌঁছতে পারেনি।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
 cbn