মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:
চকরিয়ায় রাতের আঁধারে মাটি দিয়ে সরকারি ছড়া খাল ভরাট করা হচ্ছে। সেখানে চলছে অবৈধভাবে দোকানপাট নির্মাণের প্রস্তুতি। উপজেলার খুটাখালী ইউনিয়নস্থ ৮নং ওয়ার্ডে চলছে সরকারি খালে অবৈধ দখল কর্মকাণ্ড। জড়িতরা তাড়াহুড়ো করে কয়েকটি দোকানঘর নির্মাণের পাঁয়তারা চালাচ্ছে।
এলাকাবাসীরা জানায়, দখলের কারনে খালটি পরিধি হারিয়ে বর্ষায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টির আশংকা রয়েছে। এছাড়াও মারাত্মক ভোগান্তিতে পড়বে সদর উপজেলার নতুন অফিস বাজার ব্যবসায়ীসহ ক্রেতাগণ। চরম ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হবে খাল সংলগ্ন ক্ষেত খামারীরা। উপজেলার সর্ব দক্ষিণে খালটির অবস্থান হওয়ায় সঠিক নজরদারীতে বেগ পেতে হয় সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের।
রবিবার রাতে সরজমিনে জানা যায়, ছড়া খালে মাটি ভরাটের কাজ চলছে। সেখানে নির্মাণের প্রস্তুতি নিচ্ছে একাধিক দোকানঘর। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সরকারি খালের এ অবৈধ দখলে নেতৃত্ব দিচ্ছেন পার্শ্ববর্তী কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রশিদ আহমদ (৪৭) নামের ব্যক্তি। তার নেতৃত্বে ইতিপূর্বে তৎসংলগ্ন খাল ভরাট করে নির্মাণ করে আরো একটি লম্বা দোকান ঘর।
সরকারি ছড়া খাল জবর দখল করার কারণ জানতে অভিযুক্ত রশিদ আহমদের মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
খুটাখালী ৮নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মোঃ জসিম উদ্দিন বলেন, ফুলছড়ি ছড়া খালটি আমার আওতাধীন এলাকায়। তবে মাটি ভরাট করে খাল দখলের বিষয়টি জানতাম না। খোঁজখবর নিয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে বিষয়টি অবগত করা হবে।
এ ব্যাপারে চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) মোঃ তানভীর হোসেন বলেন, সরকারি খাল দখল করে স্থাপনা নির্মাণকারী যেই হোক ছাড় দেওয়া হবে না। বিষয়টি খোঁজ খবর নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •