হাবিবুল্লাহ আল বাহার, জার্মানি থেকে:
জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের ব্যক্তিগত ডাক্তার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে ম্যার্কেলকে। রোববার জার্মান সময় বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে ফিরে এই সংবাদ শুনার পর কোয়ারেন্টাইনে থাকার সিধান্ত নেন ম্যার্কেল।

এর আগে সোমবার (২৩ মার্চ) থেকে দুই জনের বেশি একত্রিত হওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে দেশটির ফেডারেল সরকার। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণের জন্য সোমবার থেকে এই নিয়ম কার্যকর করবে সরকার।

এদিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত করোনাভাইরাসে দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩,৯৭৪ জন এবং এখন পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা ৯৩ জন। আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে চীন, ইতালি, স্পেন এবং আমেরিকার পরেই জার্মানির অবস্থান।

গত শনিবার থেকে দেশটির ১৬ টি প্রদেশের ২টি প্রদেশ বায়ান মিউনিখ এবং সারল্যান্ড প্রদেশকে লকডাউন করা হয়। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া এই দুই প্রদেশে কেউ বাইরে বের হলে দুই বছরের জেল বা পঁচিশ হাজার ইউরো (প্রায় ২৫ লাখ টাকা) জরিমানার বিধান করা হয়েছে। তাই কেউ বাইরে বের হলে পুলিশ বা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিকট যথাযথ কারণ সাপেক্ষে প্রমাণ পেশ করতে হচ্ছে।

এর আগে, করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে বন্ধ করা হয় দেশটির সীমান্ত এবং সবশিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া সরকারি নির্দেশনা মোতাবেক দেশটির সব মসজিদ, গির্জা, মন্দিরসহ সব উপাসনালয় বন্ধ রাখা হয়েছে।

গত সপ্তাহে জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল এক টেলিভিশন ভাষণে বলেছিলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর জার্মানি এত বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়নি। করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সবাইকে সরকারের নির্দেশ মেনে চলার আবেদন জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •