মানুষের মাঝে আনন্দ উচ্ছ্বাস

বার্তা পরিবেশক :

চকরিয়া-পেকুয়া আসনের এমপি ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলমের সার্বিক সহযোগিতায় অবশেষে সম্প্রতি সময়ে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীরপাড়া হয়ে ছিরাদিয়া পয়েন্টে বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে।

এমপি জাফর আলমের সুপারিশক্রমে পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা নাছির উদ্দিন বাদশার আবেদনের প্রেক্ষিতে পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীরপাড়া হয়ে ছিরাদিয়া পয়েন্টে দুই কিলোমিটার বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু করেছেন পানি উন্নয়ন বোর্ড। গত ২০ মার্চ বান্দরবান পানি উন্নয়ন বোর্ডের পেকুয়া শাখা কর্মকর্তা গিয়াস উদ্দিন ও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা উপস্থিত থেকে স্থানীয় এলাকাবাসির উপস্থিতিতে প্রায় ১ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরীতে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীর পাড়া ৩৬ নং স্লুইচ গেট থেকে ছিরাদিয়া পয়েন্ট পর্যন্ত ২ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ পুনঃ নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়েছে। একটু দেরীতে হলেও এলাকার সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনীর রক্ষাকবজ বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজটি শুরু হওয়ার খবরে ইতোমধ্যে সদর ইউনিয়নের মেহেরনামা অঞ্চলে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে আনন্দ উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়েছে।

এদিকে এলাকাবাসির দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনের এমপি ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলমের সার্বিক সহযোগিতায় পেকুয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীরপাড়া হয়ে ছিরাদিয়া পয়েন্টে বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজটি শুরু হওয়ায় এমপি জাফর আলমের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মেহেরনামাবাসী। এলাকাবাসির পক্ষে এমপি জাফর আলমকে বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজে সহযোগিতা করায় অভিনন্দন জানিয়েছেন পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা নাছির উদ্দিন বাদশা।

বেড়িঁবাধ নির্মাণ কাজের উদ্যোক্তা পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা নাছির উদ্দিন বাদশা বলেন, পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের মেহেরনামা ও ছিরাদিয়া অঞ্চলটি মাতামুহুরী নদীর একেবারে সন্নিকটের এরিয়া। প্রতিবছর বর্ষাকালে ভারী বৃষ্টিপাত ও পাহাড়ি ঢলের তা-বে দুইটি অঞ্চলের জনসাধারণ নদীর ভাঙ্গনের শিকার হয়ে আসছেন। ইতোমধ্যে দুইযুগের ব্যবধানে বেড়িবাঁধ ভাঙ্গনে নদীতে বিলীন হয়ে এলাকার হাজারো পরিবার গৃহহীন হয়ে পড়েছেন। ব্যাপক ক্ষতিসাধন হচ্ছে ফসলি জমি, একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান।

নাছির উদ্দিন বাদশা বলেন, এলাকাবাসির এই ধরণের দুর্যোগ দৈন্যদশার কারণে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানিয়ে আমি ২০১৯ সালের ১০ জুন পেকুয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীরপাড়া হয়ে ছিরাদিয়া পয়েন্টে বেড়িবাঁধ নির্মাণের জন্য পেকুয়া উপজেলার ইউএনও মাহাবুব-উল করিমের কাছে লিখিত আবেদন করি। তিনি পরবর্তীতে আমার ওই আবেদনের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য চকরিয়া-পেকুয়া আসনের এমপি আলহাজ জাফর আলমের সুপারিশক্রমে ২০১৯ সালের ১২ জুন আবেদনটি উনিঅ/পেকুয়া/কক্স-২০১৯-৩০৯ নম্বর স্বারকমুলে বান্দরবান পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলীর দপ্তরে প্রেরন করেন।

উত্তর মেহেরনামার মছনিয়া কাটা গ্রামের বাসিন্দা ও পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সস্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য নাছির উদ্দিন বাদশা বলেন, একবছর আগে বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ বাস্তবায়নে আমি আবেদন করেছিলাম প্রশাসনের কাছে। আমার সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে অবশেষে চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে বান্দরবান পানি উন্নয়ন বোর্ড ১ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরীতে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের দক্ষিন নন্দীর পাড়া থেকে ছিরাদিয়া পয়েন্ট পর্যন্ত ২ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ পুনঃ নির্মাণ কাজ শুরু করেছে।

তিনি বলেন, একটু দেরীতে হলেও এলাকার সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনীর রক্ষাকবজ বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজটি শুরু হওয়ার খবরে ইতোমধ্যে সদর ইউনিয়নের মেহেরনামা অঞ্চলে সর্বস্তরের মানুষের মাঝে আনন্দ উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে পড়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •