বার্তা পরিবেশক
আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় কক্সবাজার শহরের বৃহত্তর বার্মিজ মার্কেটস্থ আলমাছ কমপ্লেক্স থেকে সন্ত্রাসী দিয়ে ভাড়াটিয়া উচ্ছেদের অপচেষ্টার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন কক্সবাজারের বিভিন্ন ব্যবসায়ী প্রতিনিধি ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
বিবৃতিদাতাদের মধ্যে রয়েছে -বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি রফিক মাহমুদ, সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম মুকুল, কার্যকরী সভাপতি মাওলানা নজরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক হাবিবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ফরহাদ, কক্সবাজার দোকান মালিক সমিতি ফেডারেশনের সভাপতি মোস্তাক আহমদ, বৃহত্তর বার্মিজ মার্কেট ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি আলহাজ্ব ফরিদ আহমদ চৌধুরী, কার্যকরী সভাপতি মুছা কলিম উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন খোকন, লাবনী পয়েন্ট বিচ পার্ক ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুর রহমান, এবিসি রোড ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, বড়বাজার মসজিদ মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাব উদ্দিন, বড়বাজার বস্ত্র ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সহসভাপতি মোঃ লোকমান, সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, ব্যবসায়ী নেতা নাসির উদ্দিন সুমন, ফয়সাল।
বিবৃতিতে ব্যবসায়ী নেতারা বলেন, সুনির্দিষ্ট চুক্তিনামা ও শর্ত অনুযায়ী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার পরও জমিদারপক্ষ বিনা কারণে, তাও আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় ভাড়াটিয়াকে উচ্ছেদ করতে চাওয়া খুবই দুঃখজনক।
এমন ঘটনা পুনরাবৃত্তি ঘটলে অপরাপর ভাড়াটিয়া ব্যবসায়ীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনায় অনুৎসাহিত হবে।
সেই সঙ্গে সৃষ্ট ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান না হলে আরো অপ্রীতিকর ঘটনার আশঙ্কা করা হচ্ছে।
ব্যবসায়ীরা আরো বলেন, ২০০৬ সাল থেকে আলমাছ কমপ্লেক্সের গলির পশ্চিম পাশের ১ ও ২ নং দোকানের ভাড়াটিয়া হিসেবে রয়েছেন মিজানুর রহমান।
আমরা যতটুকু জানি, চুক্তি অনুযায়ী নিয়মিত ভাড়া পরিশোধসহ সব শর্ত মেনে চলছেন মিজানুর রহমান। ভাড়া সংক্রান্ত বিষয়ে জমিদারের সাথে কোনদিন সামান্যতমও মতবিরোধ হয় নি। এরপরও কোন কারণ ছাড়াই ভাড়াটিয়া উচ্ছেদ করতে চাচ্ছে জমিদারপক্ষ। যা দেশের প্রচলিত বিধি ও আইন শৃঙ্খলা পরিপন্থী।
হুমকি-ধামকির ঘটনার সঙ্গে যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে ভাড়াটিয়াসহ সাধারণ ব্যবসায়ীদের জান ও মালের নিরাপত্তায় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহবান করছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •