মুরাদ মাহমুদ চৌধুরী :

শহরের পানবাজার রোড সংলগ্ন মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিক্রয়ের দোকানগুলোতে মানুষের ভীড় চোখে পড়ার মতো।
শনিবার সকাল ১২টায় পানবাজার রোডের মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিক্রয়ের দোকান নূর স্যার্জিকালে এই দৃশ্য লক্ষ্য করা যায়।

সম্প্রীতি বিশ্বব্যাপী সংক্রমিত করোনা ভাইরাস সারাদেশে আতঙ্ক সৃষ্টি হলে গণমানুষের মধ্যে নানা প্রভাব দেখা মিলে। সাধারণ মানুষ তাদের নিজস্ব সুরক্ষা রক্ষার্থে নিচ্ছে নানা সচেতনতামূলক পদক্ষেপ। যার কারণে শহরের মুদি দোকান ও নিত্যপণ্যের চাহিদা বৃদ্ধির পাশাপাশি বেড়েছে মাস্ক ও স্যানিটাইজারের চাহিদাও।

এই ব্যপারে এক মাস্ক কিনতে আসা পাহাড়তলী নিবাসী মো: ইউনুস খান বলেন, “সারাদেশে করোনা আতঙ্কে মানুষ এখন মাস্ক ও স্যানিটাইজার কিনে সুরক্ষা ও নিরাপদ থাকার চেষ্টা করছে। তাই আমিও আমার পরিবারকে সুরক্ষা রাখতে মাস্ক ও স্যানিটাইজার কিনে নিলাম।”

তিনি আরো জানান, “দোকানে নির্দিষ্ট এবং সূলভমূল্যে পাওয়া যাচ্ছে মাস্ক ও স্যানিটাইজারগুলো।” তবে এসবের আরো বেশি উৎপাদন বাড়াতে হবে বলে মনে করেন তিনি।

মাস্ক বিক্রেতা নূর স্যার্জিকালের এক কর্মকর্তা মিজান জানান, “আমরা প্রতিটি মাস্ক এর বিক্রয়মূল্য নির্দিষ্ট ভাবে ৩০ টাকা এবং প্রতিটি স্যানিটাইজারের গায়ের মূল্য অনুযায়ী ১৩০ টাকা করে নিচ্ছি।”

এছাড়া তিনি আরো জানান, “সকলের চাহিদা মেঠাতে প্রত্যেক ক্রেতাসাধারণকে একটির অধিক আমরা বিক্রয় করছি না।”

করোনা ভাইরাস মোকাবেলা করতে মানুষের এমন সচেতনতা ও সতর্কতা অবলম্বন ও আল্লাহর কাছে দোয়া কামনা যুগান্তকারী পদক্ষেপ হবে এমন বিশ্বাস সচেতনমহলের ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •