মোস্তফা কামাল, ডুলাহাজারা:
চকরিয়া উপজেলার ডুলাহাজারায় নিরীহ ব্যক্তির বসতভিটা জোরপূর্বক দখলে নিতে বসতির স্থাপনা ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে দখলবাজ দুই সহোদরের বিরুদ্ধে।

মঙ্গলবার (১৭ই মার্চ) সকাল ১০ টার দিকে ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ড মালুমঘাট চা-বাগান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ অবস্থায় সন্ত্রাসীদে নির্যাতনে ওই পরিবারটি এখন অসহায় হয়ে পড়েছে। দখলবাজদের হাতে নির্যাতনের শিকার ওই এলাকার সাবেক এম ইউপি মৃত মোক্তার অাহমদ প্রকাশ মোক্তার ডিলারের বড় পুত্র ভুক্তভোগী কামাল হোসেন অভিযোগ করে জানান, তাদের বাবা মোক্তার অাহমেদ জীবদ্দশায় দীর্ঘ বছর অাগে তাঁর নামীয় সব জায়গা জমি তাঁর ওয়ারিশগণ ছেলে-মেয়েদেরকে নিয়ম অনুযায়ী ভাগ করে দিয়ে গেছেন। ওই পত্রিক জমিতে তাঁর সন্তানরা স্ব-স্ব অংশে অালাদা-অালাদা ঘর নির্মাণ করে বসবাসে রয়েছে। সবার মতো কামাল হোসেনেও তার পাওয়া জমির অংশে ঘর নির্মাণ করে পরিবার পরিজন নিয়ে শান্তি পূর্ণভাবে বসবাস করে অাসছেন।

কিন্তু ইতি পূর্বে হঠাৎ কামাল হোসেনের ওই বসত ভিটার জমির প্রতি লুলুপ পড়ে তার পাশে বসবাস রত চকরিয়া শহরের সাইফুল মটর দোকান ব্যবসায়ী অাপন ছোট ভাই সাইফুল ইসলাম ও মুবিনুল ইসলামের। কামাল হোসেন জানান, অভিযুক্তরা তার বসত ভিটার জমি জোরপূর্বক দখলে নিতে দীর্ঘদিন চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়ে ঘটনার দিন সকালে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে অভিযুক্ত ছোট ভাই সাইফুলের নেতৃত্বে মুবিনুল ইসলাম ও ভারাটে ফরিদসহ ৫-৬ জন দখলবাজরা হামলা দিয়ে কামাল হোসেনের বসতবাড়ির উঠানে তার নির্মিত দীর্ঘদিনের নলকূপ, টিউবওয়েল ও গোসল খানার পাকাঘরে ভাংচুর চালিয়ে ভেঙ্গে মাটির সাথে গুড়িয়েদে। এসময় কামাল হোসেনের বাড়িতে ভাংচুরের খবর পেয়ে অাশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে দখলবাজরা দ্রুত পালিয়ে যায়। এঘটনায় হামলা কারী দখলবাজদের বিরুদ্ধে মামলা করবেন বলে কামাল হোসেন জানান।

এঘটনায় জানতে চাইলে চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, ডুলাহাজারায় এ ধরণের ঘটনা নিয়ে থানায় কেউ অভিযোগ দেননি, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে অাইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এঘটনায় ভুক্তভোগী কামাল হোসেন থানা পুলিশসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •