মহেশখালী প্রতিনিধি:

খুলনার নৌঘাঁটিতে ট্রেনিং করার সময় আকস্মিক অসুস্থ হয়ে মহেশখালীর এক মেধাবি সন্তান, বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর সৈনিক আতাউর রহমান খান কায়সার এর মৃত্যুতে পুরো মহেশখালী দ্বীপ যেন শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছে। গত ১৫ মার্চ সকালে খুলনায় পিটি চলা কালিন অসুস্থ হয়ে যশোরে পায়ের অপারেশন কালে তিনি মারা যান বলে পারিবারিক সুত্র জানান। মারা যাওয়া সৈনিক কায়সার মহেশখালী উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের শুগরিয়া পাড়া গ্রামের আব্দুচ ছবুরে পুত্র।

১৬ মার্চ সকালে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর একটি সুসজ্জিত গার্ড অব অনার দলসহ একটি টিম মৃত কায়সারের মরদেহ মহেশখালীতে নিয়ে এসে দুপুর সাড়ে ১২ টায় তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যদা প্রদানের মাধ্যমে দাফন সম্পন্ন করেন।

মৃত আতাউর রহমান কায়সারের পারিবারিক সুত্র ও তার সহ কর্মী নজরুল জানান, তিনি ২০১২ সালে হোয়ানকের পানির ছড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস এস সি পাশ করে ২০১৪ সালে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীতে সৈনিক পদে যোগদান করেন। তিনি চট্টগ্রাম নৌ ঘাটি থেকে খুলনা নৌ ঘাটিতে পদোন্নতি জনিত ট্রেনিং কোর্সে অংশ গ্রহণ করতে গিয়ে গত ১৫ মার্চ সকালে পিটি করার সময় উল্টো দৌড় করতে গিয়ে মাটিতে পড়ে হাঁটুতে ব্যাথা পান । তাকে খুলনা মেডিকেলে নেয়া হলে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর সিএমএইচ এ রেফার করা হয়।

যশোর সিএমএইচ এ ডাক্তাররা পরিক্ষা করে জানতে পারেন তার একটি কিডনিও নষ্ট হয়ে গেছে। তখন ডাক্তাররা মেডিকেল বোর্ড গঠনেরর মাধ্যমে অনেক পরামর্শ করে তার কিডনি প্রতিস্থাপন করে তাকে বাচানোর জন্য অপেরশন করার সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু অপারেশন করার আগেই সে সকাল সাড়ে ১০ টায় মারা যান। মহেশখালীর এ মেধাবি চাকুরিজীবি সৈনিকের মৃত্যুতে তার বন্ধু মহলসহ স্থানীয়দের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •