প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
উখিয়ায় সারাদেশের ধর্মীয় গুরু বৌদ্ধ ভিক্ষুসংঘের দুই দিনব্যাপী ‘মহতি সংঘসম্মেলন-২০২০’।

বঙ্গীয় বৌদ্ধ সমাজের অবক্ষয়রোধ, বুদ্ধের সদ্ধর্মের শ্রীবৃদ্ধি, বৌদ্ধদের সংস্কৃতি, সমাজনীতি এবং ধর্মীয় গুরু ভিক্ষুসংঘের সংহতি রক্ষার পাশাপাশি আগামীদিনের করণীয় নির্ধারণকল্পে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এ সম্মেলন এমনটি জানিয়েছেন আয়োজক সংশ্লিষ্টরা।

শুক্রবার সকালে উখিয়ার শৈলেরডেবা চন্দ্রোদয় বৌদ্ধ বিহারে ‘বিশ্বজ্যোতি মিশন কল্যাণ ট্রাস্টের’ উদ্যোগে আয়োজিত বাংলাদেশী বৌদ্ধদের দ্বিতীয় ধর্মীয় গুরু উপ-সংঘরাজ ড. জ্ঞানশ্রী মহাথের কর্তৃক মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, জাতীয় ও ধর্মীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের শুভ উদ্বোধন করেন।

আয়োজকরা জানিয়েছেন, এ সম্মেলনে সারাদেশের ৫ শতাধিক ভিক্ষুর পাশাপাশি ভারত, শ্রীলংকা, নেপাল, মিয়ানমার ও থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন বৌদ্ধ প্রধান রাষ্ট্রের খ্যাতিসম্পন্ন ভিক্ষুসংঘ, বুদ্ধদর্শনবিদ ও শিক্ষাবিদসহ বিশিষ্ট ধর্মীয় নেতারাও সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন।

সকালে সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে অনুষ্ঠিত হয় অষ্ট-পরিস্কারসহ মহাসংঘদান ও সদ্ধর্ম সভা। এছাড়া ‘কর্মযোগী জ্ঞানালংকার ও ডক্টর কচ্চায়ন পাঠাগার’ এবং সুরম্য নাগসেন-মিলিন্দ বৌধি চৈত্য (প্যাগোডা) উদ্বোধন।

বিকালে দ্বিতীয় অধিবেশনে অনুষ্ঠিত হয় ‘বঙ্গীয় ভিক্ষুসংঘ ও গৃহীদের বৌদ্ধিক প্রগতি সাধনের লক্ষ্যে আদর্শ নীতিমালা প্রণয়ন এবং কার্যকরী প্রদক্ষেপ গ্রহণ’ শীর্ষক এক যৌথ কনভেশন।

এতে ভিক্ষুসংঘের পক্ষে দিল্লী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. কচ্চায়ন মহাথের এবং গৃহীসংঘের পক্ষে চট্টগ্রামের ইউএসটিসি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ডা: প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

কনভেশনে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন থাইল্যান্ডের ব্যাংকস্থ মহাচুলালংকার নারাজা ইউনিভার্সিটির শিক্ষক প্রফেসর ড. প্রিয়রত্না ওয়ামোরুয়ে থের, চট্টগ্রাম কলেজের পালির বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক অর্থদর্শী বড়ুয়া, শিক্ষাবিদ ড. জগন্নাথ বড়ুয়া, চট্টগ্রামের লতিফা সিদ্দিকী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর শিমুল বড়ুয়াসহ খ্যাতিসম্পন্ন ভিক্ষুসংঘ, বুদ্ধদর্শনবিদ ও শিক্ষাবিদসহ বিশিষ্ট ধর্মীয় নেতারাও।

এতে ৫ শতাধিক ভিক্ষুসংঘের পাশাপাশি সহস্রাধিক গৃহীসংঘ অংশগ্রহণ করেছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

সন্ধ্যায় সেমিনার শেষ হওয়ার পর অনুষ্ঠিত হয় বিশ্বশান্তি কামনায় সমবেত প্রার্থনা ও মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন।

এরপরই অনুষ্ঠিত হয় বাংলাদেশী বৌদ্ধদের ধর্মীয় গুরুদের নীতি-নির্ধারণী বিষয়ক সংস্থা বাংলাদেশ সংঘরাজ ভিক্ষু মহাসভার এক সাধারণ সভা। এতে কনভেশনের উত্থাপিত প্রস্তাবনা সমূহ নিয়ে বিশদ আলোচনা হয় আগামীদিনের কর্মপন্থা নির্ধারণের।

এর মধ্য দিয়ে সমাপ্তি ঘটে সম্মেলনের প্রথমদিনের কর্মসূচীর।

সম্মেলনের দি¦তীয় দিনে অনুষ্ঠিত হবে ভিক্ষুসংঘের অংশগ্রহণে ‘ থেরবাদী ঐতিহ্য রক্ষায় সাংঘিক জীবনের করণীয় কর্তব্য ও একতার গুরুত্ব’ শীর্ষক এক সেমিনার।

সম্মেলন উদযাপন কমিটির আহবায়ক শ্রীমৎ কুশলায়ন মহাথের বলেন, বহুধা বিভক্ত বৌদ্ধদের ঐক্য স্থাপন, ভিক্ষুসংঘের সংহতি রক্ষা, বুদ্ধের সদ্ধর্ম চর্চা-অনুশীলন, বৌদ্ধ শিক্ষা ও সংস্কৃতির উৎকর্ষ সাধন এবং বঙ্গীয় বৌদ্ধ সমাজের অবক্ষয়রোধ কল্পে এবারের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে উত্থাপিত প্রস্তাবনা সমূহ বিভিন্ন স্তরে তুলে ধরে আগামীদিনের কর্মপন্থা নির্ধারণ করা হবে।

মূলত: এবারের সম্মেলনটি একটি নীতি-নির্ধারণী বিষয়ক সিদ্ধান্তে আসার ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখবে বলে মন্তব্য করেন এ আয়োজক।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •