সিবিএন ডেস্ক

করোনাভাইরাস থাবা বসাল আইপিএলেও। এপ্রিলের ১৫ তারিখ পর্যন্ত পেছানো হয়েছে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এই টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগটি

গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল কয়েক দিন ধরেই। আইপিএলের ম্যাচ মানেই মাঠে হাজারো সমর্থকের উপস্থিতি। আর স্টেডিয়ামে এত মানুষ আসা মানে করোনাভাইরাসের শঙ্কা। খেলা আয়োজন করে হাজারো সমর্থককে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে কেন ফেলবে ভারত?

করোনাভাইরাস সতর্কতায় ভিসা দেওয়ায় বিধিনিষেধও আরোপ করেছে ভারতের সরকার। এতে আইপিএলের শুরু থেকে দেখা যাবে না বিদেশি ক্রিকেটারদের। যেখানে বিদেশি ক্রিকেটাররাই ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টের অন্যতম আকর্ষণ, সেখানে তারা না থাকলে টুর্নামেন্ট কীভাবে হয়? সব মিলিয়ে তাই আপাতত জনপ্রিয় এই টুর্নামেন্টকে কিছুদিনের জন্য স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই। যেখানে আইপিএলের এই মৌসুম শুরু হওয়ার কথা ছিল ২৯ মার্চ, সেখানে ১৭ দিন পিছিয়ে এখন টুর্নামেন্টটি শুরু হবে ১৫ এপ্রিল থেকে। করোনাভাইরাসের সাম্প্রতিক পরিস্থিতির কথা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে বিসিসিআইয়ের সাম্মানিক সচিব জয় শাহ জানিয়েছেন, ‘ভারতের ক্রিকেট বোর্ড সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইপিএল পেছানোর। আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত থাকবে আইপিএল। নভেল করোনাভাইরাসের বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আইপিএলের শেয়ারহোল্ডারসহ জনগণের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সম্বন্ধে বিসিসিআই যথেষ্ট সচেতন। তাই আইপিএলের দর্শকেরা যেন নিরাপদে ক্রিকেট দেখতে পারেন, সে ব্যাপারে যা যা করা লাগে বিসিসিআই তাই করবে। এই সময়ে এই পরিস্থিতির উন্নয়ন সাধন করার জন্য বিসিসিআই ভারত সরকার, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করবে।’

এদিকে করোনাভাইরাসের উত্তাপ টের পাচ্ছে পিএসএলও। করোনাভাইরাসের প্রভাবে দেশে ফেরা নিয়ে জটিলতা তৈরি হতে পারে ভেবে এরই মধ্যে তড়িঘড়ি ঘরে পাকিস্তান ছাড়ছেন পিএসএলে খেলা ইংলিশ ক্রিকেটাররা। মঈন আলী, জেসন রয়, জেমস ভিন্সের মতো ক্রিকেটাররা আজ-কালের মধ্যেই দেশে ফিরছেন বলে জানিয়েছে ইংলিশ দৈনিক ডেইলি মেইল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •