সিবিএন ডেস্ক:

দিনাজপুরে ১৩ দিন আগে চীনফেরত এক শিক্ষার্থী জ্বর-সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হওয়ায় নাক ও গলার লালার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে করোনাভাইরাস সন্দেহে তাকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

গত ২৭ ফেব্রুয়ারি চীনের জেজিয়াং প্রদেশ থেকে মালয়েশিয়া হয়ে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর দিয়ে দিনাজপুরে আসেন ওই শিক্ষার্থী।

ওই শিক্ষার্থীর পরিবারের সদস্যরা জানান, ১৩ দিন আগে সুস্থ অবস্থায় চীন থেকে দিনাজপুর আসেন ওই শিক্ষার্থী। তিনদিন আগে জ্বর-সর্দি ও কাশিতে আক্রান্ত হন তিনি। তার একদিন পরই ওই শিক্ষার্থীর বাবা জ্বর-সর্দিতে আক্রান্ত হন।

দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুছ কুদ্দুছ বলেন, দিনাজপুরের যেসব শিক্ষার্থী কিছুদিনের মধ্যে চীন থেকে বাংলাদেশে এসেছে তাদের সবাইকে পর্যবেক্ষণের মধ্যে রেখেছিলাম। এরই মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার দিনাজপুর শহরের উপশহর এলাকায় একজনের অসুস্থ হওয়ার খবর পাই। অসুস্থ ব্যক্তি চীনের জেজিয়াং প্রদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। খবর পেয়ে রাতেই একটি মেডিকেল টিম নিয়ে ওই শিক্ষার্থীর বাড়ি পরিদর্শন করি। তার শরীরের তাপমাত্রা বেশি হলেও করোনার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে তার বাবার শরীরেও একই রকম উপসর্গ লক্ষ্য করা গেছে।

সিভিল সার্জন মো. আব্দুছ কুদ্দুছ আরও বলেন, মঙ্গলবার রাতে সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে (আইইডিসিআর) বিষয়টি জানানো হয়। বুধবার রংপুর আইইডিসিআরের দুই সদস্যের একটি দল অসুস্থ শিক্ষার্থীর নাক ও গলার লালার নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে গেছে। তারা ওই নমুনা ঢাকায় আইইডিসিআরে পাঠাবেন। সেখান থেকে বিষয়টি আমাদের নিশ্চিত করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •