আবুল কালাম, চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রাম নগরীর ২৬ নং ওয়ার্ডে চৌধুরীপাড়া এলাকায় গোপাট রোড বিটুমিন বিহীন নর্মাল পাথর দিয়ে রাতের অন্ধকারে ঢালাই কাজ সম্পন্ন  করেছে।
স্থানীয় লোকজন প্রতিবাদ করেও ব্যর্থ হয়। এ ব্যাপরে স্থানীয়দের অভিযোগে বুধবার ১১ মার্চ সকালের দিকে নির্মাণাধীন রাস্তা সরেজমিনে অভিযোগের সত্যতার চিত্র দেখা যায়।

আসন্ন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনে ব্যস্ত থাকায় স্থানীয় কাউন্সিলর আবুল হাশেমকে খবর দিয়েও পাননি।শুধু তাই নয় স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের ও ব্যস্ততার কারণে ঠিকাদার সুযোগ নিয়ে এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার এর সহযোগিতায় কাজটা সম্পন্ন করেন।
অভিযোগ পেয়ে সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে রাস্তা নির্মাণের দুর্নীতির ব্যাপক সত্যতা পাওয়া যায়। তবে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাউকে পাওয়া না গেলেও অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার কে পাওয়া যায়। এসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার এর কাছ থেকে ঠিকাদারের নাম জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি তার পরিচয় গোপন রেখে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের নাম বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তাৎক্ষণিক সাংবাদিকরা নিরুপায় হয়ে এসিস্টেন্ট ইঞ্জিনিয়ার এর ছবিসহ নির্মাণাধীন রাস্তার ছবি তুলতে বাধ্য হয় ।
স্থানীয় লোকজনদের অভিযোগ নরমাল পাথরের ভূষি ও ১৩ নম্বর বিটুমিন দিয়ে রাতের আধারে রাস্তার কাজ সম্পন্ন করেন ঠিকাদার।
যা এখনই বিটুমিন আর পাথর উঠে যাচ্ছে, বৃষ্টি হলে তো ধুয়েমুছে নিঃশেষ হযে যাবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় এই ধরনের রাস্তা নির্মাণ কাজের মহোৎসব চলছে আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে সামনে রেখে নেতৃত্ব পরিবর্তন আসবে মনে করে ঠিকাদাররা দ্রুত তাদের কাজ শেষ করে বিল ভাউচার হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন। নগরীর বেশ কিছু ওয়ার্ডে এই ধরনের নির্মাণ কাজ চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে জনগণের সুবিধা ভোগের চেয়ে দুর্ভোগ বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
অভিজ্ঞ মহল মনে করছেন এই ধরনের নির্মাণ মহাউৎসবে সরকারি রাজস্ব ব্যাপক ক্ষতি ও জনগণের দুর্ভোগ বাড়বে।এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া উচিত।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •